Home | About Us | Porshi Team | Porshi Patrons | Event Announcement | Contact Us
হোমপেজ পুরনো সংখ্যা: সূচীপত্র   ||    ৯ম বর্ষ ৪র্থ সংখ্যা শ্রাবন ১৪১৬ •  9th  year  4th  issue  Jul-Aug  2009 পুরনো সংখ্যা
মূল রচনাবলীঃ বাংলাদেশে প্রবাসী বিনিয়োগ
  প্রচ্ছদ : বাংলাদেশে প্রবাসী বিনিয়োগ

এবারের প্রচ্ছদে ব্যবহৃত হয়েছে স্যান হোজে, ক্যালিফোর্নিয়া প্রবাসী শিল্পী মুর্শিদা চৌধুরীর চিত্রকর্ম। এ চিত্রকর্মটি ‘ডিজিটাল কোলাজ’ মিডিয়াতে করা। কোলাজ চিত্রকর্মটির উপরের অংশটি বর্তমান বাংলাদেশে বিভিন্ন ধরণের বিনিয়োগের সুযোগগুলো তুলে ধরা হয়েছে - যেমন রয়েছে আইটি, গার্মেন্টস, ব্যাংকিং ইত্যাদি খাতগুলো।
4134 বার পড়া হয়েছে
 

  অতিথি সম্পাদকের কথা

পড়শীর বর্তমান সংখ্যার কভার ষ্টোরী নির্মিত হয়েছে প্রবাসে কর্মরত বাংলাদেশী জনশক্তির স্বদেশে অর্থ প্রেরণের ওপর। পাঠকদের উদ্দেশ্যে এরকম একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে আলোকপাত করতে পেরে পড়শী কর্তৃপক্ষ আনন্দিত বোধ করছে। বৈদেশিক মূদ্রা অর্জনের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের এটা অন্যতম প্রধান একটি সূত্র। এই সূত্রলব্ধ অর্থ স্বভাবতঃই দেশের দীর্ঘমেয়াদী উন্নতির কাজে ব্যবহার করা যেতে পারে; এবং তা করা উচিৎও। এ্যাপার্টমেন্ট, দোকানপাট এবং জমি কেনার মত অনুৎপাদনশীল খাতে ব্যয় না করাই শ্রেয়। এই সংখ্যায় প্রবাসীদের প্রেরিত অর্থের ব্যাপকতা, আকৃতি। দেশের মানুষের জীবন-জীবিকা এবং সার্বিক অর্থনৈতিক উন্নতির ক্ষেত্রে কতটুকু প্রভাব ফেলে বা ফেলার সম্ভাবনা রাখে তার উপর কয়েকটি প্রাসঙ্গিক লেখা অন্তর্ভূক্ত হয়েছে। আশা করি, পাঠকবর্গ এগুলো থেকে সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রে কিছুটা হলেও উপকারী/লাভজনক তথ্য-উপাত্ত পাবেন।... লিখেছেন মাহমুদ হাসান।
3743 বার পড়া হয়েছে
 

  বাঙ্গালির প্রবাসন ও অর্থবহ প্রত্যাবর্তন

বাংলাদেশের মানুষ জীবিকার জন্য কবে থেকে বহির্গমন শুরু করেছিল এ কথা সন তারিখ উল্লেখ করে বলা সম্ভব না হলেও বৃটিশ শাসিত ভারতবর্ষের এ অঞ্চলের লোকজন উনবিংশ শতাব্দির প্রথম থেকেই জীবিকার সন্ধানে বিদেশ গমন শুরু করেছিল একথা নির্দ্বিধায় বলা যায়। তাদের এ যাত্রা বেশীর ভাগ সমুদ্র পথে জাহাজ যোগে শুরু হতো বিধায় বহির্গামীরা জাহাজের চাকরী নিয়ে স্বদেশের মাটি ত্যাগ করত। পশ্চিমে তখন শিল্প বিপ্লবের চূড়ান্ত পর্যায়, সুতরাং নাবিক হয়ে যারা ইউরোপ বা আমেরিকার বন্দরে পৌঁছাতো, তাদের এক উল্লেখযোগ্য সংখ্যক লোক জাহাজ থেকে নেমে অদৃশ্য হয়ে যেতো, পরে কঠোর সংগ্রামের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, জার্মানীসহ ইউরোপের বিভিন্ন শিল্প কারখানায় চাকরী নিয়ে নতুন জীবন শুরু করে দিত। তখনকার উন্নত ইউরোপ আমেরিকার শিল্প মালিকেরা আমাদের দেশের সস্তা শ্রমিকদের বিমুখ করত না। এসব দায়বদ্ধহীন শ্রমিক নিয়োগে ওখানকার সরকারও নির্বিকার থাকত। কঠোর প্রতিকূলতার মধ্যে যারা একবার পশ্চিমে গিয়ে পৌঁছাতো তারা ওখানকার উন্নত জীবনযাত্রা দেখে প্রলুব্ধ হয়ে দেশে না ফিরে বিদেশেই প্রবাসন নিয়ে নিত। পরবর্তীতে ওই সব প্রবাসনকারীরাই হয়ে উঠলেন উদ্ধুদ্ধকারী। এদের কল্যাণেই আজ ইউরোপ-আমেরিকা ও পাশ্চাত্যের বিভিন্ন দেশে কয়েক লক্ষ বাঙালী কর্মরত। প্রবাসন নেওয়া অনেক বাঙালী পশ্চিমের মূল স্রোতধারার সঙ্গে মিশে গিয়েও জন্ম-মাটির কথা এখন আবার গভীরভাবে ভাবতে শুরু করেছে। এরা চান জন্মভূমির উন্নতি, এজন্য সরকারের কার্যকর আহবান একান্ত জরুরী। এতো গেল পশ্চিমে যারা গেছেন তাদের কথা।... লিখেছেন রফিক আনোয়ার।
3923 বার পড়া হয়েছে
 

  প্রবাসিদের বিনিয়োগের ইতিহাস প্রতিবন্ধকতা ও সম্ভাবনা

বাংলাদেশ তৃতীয় বিশ্বের একটি উন্নয়নশীল রাষ্ট্র। এ দেশের রয়েছে একটি সুদীর্ঘ সোনালী অতীত। এক সময় কর্মের সন্ধানে বিদেশীরা সুজলা-সুফলা এ বাংলায় ছুটে আসত। কিন্তু দীর্ঘ ঔপনিবেশিক শাসন আর শোষণের ফলে বাংলা তার অতীত ঐতিহ্য হারিয়ে ফেলেছে। আজ এ দেশের নাগরিকরা কর্মের সন্ধানে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ছুটে যাচ্ছে। বর্তমানে বিশ্বের প্রায় ১০০টি দেশে ৬২ লাখ বাংলাদেশি শ্রমিক কাজ করছে। এ সব প্রবাসী বাংলাদেশী নাগরিকরা বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে। বর্তমানে সরকারে বৈদেশিক আয়ের দ্বিতীয় বৃহত্তম খাত হচ্ছে প্রবাসী বাঙালীদের পাঠানো রেমিটেন্স। বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে ২০০৭-২০০৮ অর্থ বছরে প্রবাসী বাঙালিরা ৯২.২ বিলিয়ন মার্কিন ডলার রেমিটেন্স পাঠিয়েছে। যা বিশ্বের ৭০টি উন্নয়নশীল দেশের মধ্যে সপ্তম। ... লিখেছেন কে এম সেলিম।
4275 বার পড়া হয়েছে
 

  প্রবাসীদের অর্থ বেপথে ব্যয়

দেশের বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের ক্ষেত্রে প্রবাসীদের পাঠানো কষ্টার্জিত অর্থই প্রধান উৎস। আমাদের বৈদেশিক মুদ্রার ক্ষেত্রে প্রবাসীদের অবদান অপরিসীম। রাষ্ট্রীয় কোনরূপ সহায়তা ছাড়াই আমাদের তরুণরা স্বীয় উদ্যোগে বিদেশে বিভিন্ন দেশে গিয়ে নিজেদের কর্মগুণে জায়গা করে নিয়েছে। তাদের পাঠানো অর্থই দেশের বৈদেশিক মুদ্রার প্রধান উৎস হয়ে দাড়িয়েছে। অথচ আমাদের রাষ্ট্র ও ক্ষমতাসীন শাসকেরা প্রবাসীদের জন্য কোনরূপ সুযোগ-সুবিধা আজও সৃষ্টি করতে পারে নি। নাম সবর্স্ব প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় থাকলেও প্রবাসীদের কল্যাণে তেমন উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করতে পারে নি। বিদেশের বাংলাদেশ মিশনগুলোও রাষ্ট্রীয় অর্থ অপচয়ের ক্ষেত্রতে পরিণত। প্রবাসীদের স্বার্থে তাদের ভূমিকাও প্রশ্নবিদ্ধ। তারা গরিব দেশের অর্থ অপচয় করে বিলাসী জীবন কাটায় অথচ বিদেশে কর্মরত বাংলাদেশী জনশক্তির স্বার্থে তারা উল্লেখযোগ্য কোন ভূমিকা-কর্তব্য পালনে ব্যর্থতার পরিচয় দিয়ে আসছে। এজন্য তাদের কোনরূপ জবাবদিহিতা নেই। আসলে পুরো রাষ্ট্র ব্যবস্থাটি এখনও ঔপনিবেশিক আমলের ধারাবাহিকতায় অটুট রয়েছে। সেই ব্রিটিশ-পাকিস্তানি আমলে যেমন ছিল স্বাধীন বাংলাদেশেও তেমনি রয়ে গেছে। রাষ্ট্র বদলায় নি। কেবল ক্ষমতার হাত বদল হয়েছে। তাই আজও আমাদের রাষ্ট্র আমাদের প্রতিপক্ষ। নিপীড়ক এবং গণবিরোধীও। রাষ্ট্র জনগণের নয় বলেই জনগণের পাশে রাষ্ট্রকে আমরা পাইনি। প্রবাসীরা বিদেশে অমানবিক পরিশ্রমে উপার্জিত অর্থ দেশে পাঠিয়ে দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে বিশাল অবদান রাখলেও বিনিময়ে প্রবাসীদের স্বার্থে-অনুকূলে রাষ্ট্র ও সরকার সামান্য ভূমিকা পালন করেনি। ছুটিতে দেশে এসে বিমান বন্দরে তাদের নানা বিড়ম্বনার শিকার হতে হয়। মুখ বুঁজে সহ্য করতে হয় কাস্টমস্ ও সিভিল এভিয়েশনের দূর্নীতিবাজ চক্রের নানাবিধ অপর্কীতি। অথচ এই প্রবাসীদের পাঠানো বৈদেশিক মূদ্রার ওপরই দেশ নির্ভরশীল। ... লিখেছেন মযহারুল ইসলাম বাবলা।
3754 বার পড়া হয়েছে
 

  বাংলাদেশে প্রবাসীদের বিনিয়োগ

বাংলাদেশ যে বৈদেশিক বিনিয়োগের জন্য একটি উত্তম স্থান তা যে কোন মাপকাঠিতেই ধরা পড়ে। এ ব্যাপারে ‘ইন্টারন্যাশনাল হেরাল্ড ট্রিবিউন’ এবং খ্যাতিমান বিনিয়োগ ব্যাংক ‘মরগেন স্ট্যানলি’ এর মত প্রতিষ্ঠানও মতামত দিয়েছে যে ম্যানুফ্যাকচারিং এ এশিয়ার মধ্যে বাংলাদেশ একটি আকর্ষণীয় কেন্দ্র এবং ২০১৫ সাল নাগাদ এখানে বার্ষিক বৈদেশিক বিনিয়োগ ৫ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত হওয়ার যথেষ্ট সম্ভাবনা রয়েছে। এই বিশ্বায়ন প্রবণতার যুগে বাংলাদেশের সস্তা শ্রমিক, প্রয়োজনীয় প্রাকৃতিক সম্পদ এবং উন্নতিসাধক যোগাযোগ ব্যবস্থা যে তুলনামূলকভাবে কম খরচে উৎপাদন করার সুযোগ করে দেবে তাই তাদের মতবাদকে প্রভাবিত করেছে তা বুঝা যায়। এই অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে প্রবাসী বাংলাদেশীদের এখানে বিনিয়োগের আকর্ষণ অনেকগুণ বেশী হওয়া উচিত কেননা এতে নিজেরা অর্থনৈতিকভাবে লাভবান হওয়া ছাড়াও নিজ দেশকে সাহায্য করার একটা বড় সুযোগ তারা পাবে। ... লিখেছেন মাহফুজ আর চৌধুরী।
4231 বার পড়া হয়েছে
 

  প্রবাসী বিনিয়োগকারীর সাথে আলাপচারিতা

এনায়েতুর রহমান ও এহসান রশীদ দু’জনেই যুক্তরাষ্ট্রের সিলিকন ভ্যালী থেকে দীর্ঘদিন যাবৎ বাংলাদেশে বিভিন্ন ধরণের বিনিয়োগ নিয়ে পরীক্ষা-নিরিক্ষা করে আসছেন। এ বিষয়ে তাঁদের সংক্ষিপ্ত সাক্ষাৎকার নিয়েছেন পড়শীর মাহমুদুল হাসান ও সাবির মজুমদার।
3765 বার পড়া হয়েছে
 

এ সপ্তাহের জরীপ

প্রেসিডেন্ট ওবামা ঠিকমত দেশ চালা্চ্ছেন।

 
Code of Conduct | Advertisement Policy | Press Release | Hard Copy Archive
© Copyright 2001 Porshi. All rights reserved.