Home | About Us | Porshi Team | Porshi Patrons | Event Announcement | Contact Us
হোমপেজ পুরনো সংখ্যা: সূচীপত্র  মূল রচনাবলীঃ  ||  ১০ম বর্ষ ২য় সংখ্যা জ্যৈষ্ঠ ১৪১৭ •  10th  year  2nd  issue  May - Jun  2010 পুরনো সংখ্যা
আফ্রিকায় বিশ্বকাপ ফুটবল! Download PDF version
 

বিশ্বকাপ ফুটবল ২০১০

 

আফ্রিকায় বিশ্বকাপ ফুটবল!

 

দুলাল মাহমুদ

 

সেই শৈশবে, আফ্রিকা বলতে চোখের সামনে ভেসে ওঠতো ভৌতিক এক অন্ধকার ভূখণ্ডের ছবিযেখানে দেখা যায় না সূর্যের আলোরূপকথার বইতে পড়া রাক্ষস-খোক্ষসের জম্মভূমি বলেই মনে হতধারণা ছিল এমন, সেখানকার মানুষগুলোও আদিম ও বর্বরমোটেও সভ্য-ভব্য নয়এক গোত্রের লোক অন্য গোত্রের লোকদের ধরে কাবাব বানিয়ে অবলীলায় খেয়ে ফেলেনজাদু-টোনা আর অবিশ্বাস্য সব কাণ্ড-কীর্তির জন্য কুখ্যাতসব মিলিয়ে আফ্রিকাকে মনে হত, চিরায়ত রহস্যের এক আকরখনিআসলে কোনো কিছু সম্পর্কে না জানলে সে বিষয়ে ভ্রান্ত একটা ধারণা সৃষ্টি হয়আর কম জানা থাকলে সত্য আর মিথ্যের সমন্বয়ে গড়ে ওঠে একটা কাল্পনিক মিথআফ্রিকা সম্পর্কে যেটুকু জানতাম, তাতে এই দেশটিকে আধুনিক পৃথিবীর কোনো অংশ হিসেবে ভাবতে পারতাম নাতাছাড়া শ্বেতাঙ্গদের কাছ থেকে যে পাঠ আমরা নেই, তাতে থাকে নিজেদের মনের মত করে লেখা ইচ্ছে পূরণের গল্পসেই গল্প পড়ে মনের মধ্যে গড়ে ওঠতো অদ্ভুত সব ধারণাশুরুতে সেই ধারণাটা আস্তে-ধীরে ভেঙ্গে দিতে থাকেন আফ্রিকান মহান ক্রীড়াবিদরাঅ্যাথলেট জেসি ওয়েন্স, ইংলিশ ক্রিকেটার বাসিল ডিওলিভেইরা, বক্সার জো লুই, মুহাম্মদ আলীরা বদলে দিতে থাকেন আফ্রিকা সম্পর্কে আমার মত অর্বাচীনদের দৃষ্টিভঙ্গিযদিও কিংবদন্তি এই ক্রীড়াবিদদের সাফল্যগাথা রচিত হয়েছে অন্য দেশের হয়ে, কিন্তু তাদের শেকড় তো আফ্রিকার মাটিতে প্রোথিতআফ্রিকা থেকে গিয়ে দেশে দেশে তারা উড়িয়েছেন বিজয়ের পতাকাক্রীড়া দুনিয়ায় আফ্রিকান কৃষ্ণাঙ্গ ক্রীড়াবিদদের তো এখন দৌর্দণ্ডপ্রতাপ

দাসপ্রথা আর বর্ণবাদের নির্মম ইতিহাসের কারণে আফ্রিকা দেশটি মনের গভীরে দীর্ঘ দিন ক্ষত হয়ে ছিলবসতিস্থাপনকারীদের অন্যায় ও অত্যাচারে রক্তাক্ত হয় প্রাচীন এই জনপদযুগের পর যুগ শ্বেতাঙ্গদের হাতে নির্যাতিত ও নিপীড়িত হতে থাকে আফ্রিকার আদিবাসী কৃষ্ণাঙ্গরাশত বছরের শত সংগ্রাম শেষে তাদের মুক্তিদূত হয়ে আসেন নেলসন মান্দেলাকৃষ্ণাঙ্গদের স্বাধীনতার জন্য সঁপে দেন নিজের জীবন ও যৌবনকারাগারে অন্তরীণ থাকেন দীর্ঘ ২৭ বছরতার ইস্পাতদৃঢ় অটল মনোভাবের কাছে হার মানে শ্বেতাঙ্গ শাসকরা১৯৯০ সালের ১১ ফেব্রুয়ারী মুক্তমানব হয়ে ফিরে এলে কার্যত আফ্রিকাও পায় স্বাধীনতার সুবাস১৯৯৪ সালের এপ্রিলের সাধারণ নির্বাচনে মান্দেলার নেতৃত্বে আফ্রিকান ন্যাশনাল কংগ্রেস জয়ী হলে অবসান ঘটে দীর্ঘ দিনের বর্ণবাদেরশুরু হয় কৃষ্ণাঙ্গদের দিনবদলের পালাক্রীড়াঙ্গন থেকে নির্বাসন থেকে ফিরে আসার পর দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রীড়াবিশ্বে ছড়াতে থাকে উজ্জ্বলতা  আর এক্ষেত্রেও রয়েছে তার সার্বজনীন ভূমিকা।

সেই আফ্রিকায় এবার বসছে বিশ্বকাপ ফুটবলের আসরএই প্রথম আফ্রিকান কোনো দেশে আয়োজিত হবে এই ফুটবল মহাযজ্ঞদক্ষিণ আফ্রিকানদের ফুটবল ইতিহাসও নেহাত মন্দ নয়ঊনবিংশ শতাব্দীতে ব্রিটিশ সৈন্যদের পায়ে পায়ে পৌঁছায় ফুটবলতবে বর্ণবাদের কারণে ফুটবলটা সেভাবে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে পারেনিবর্ণবাদের অবসানের পর দক্ষিণ আফ্রিকান ফুটবলে সূচনা হয় জাগরণের১৯৯৬ সালে আফ্রিকান নেশনস কাপে চ্যাম্পিয়ন এবং ১৯৯৮ ও ২০০২ সালের বিশ্বকাপের চূড়ান্ত পর্বে খেলার গৌরব অর্জন করেরাগবি ও ক্রিকেটের দেশে ফুটবলটা ক্রমান্বয়ে নিজেদের অবস্থান করে নিচ্ছেবিশ্বকাপ ফুটবল আয়োজনটা সুসম্পন্ন হলে ফুটবলের পালে বোধকরি লাগবে নতুন হাওয়া

বিশ্বকাপ আয়োজনের ক্ষেত্রেও জড়িয়ে আছে নেলসন মান্দেলার নামআয়োজক হওয়ার পেছনে তিনি ছিলেন সামনের কাতারেশুধু তাই নয়, আয়োজক হওয়ার নিলামে সদলবলে উপস্থিত ছিলেন ফিফার সদর দফতর জুরিখেসাউথ আফ্রিকার নাম ঘোষণা হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আবেগে আপ্লুত হয়ে ওঠেন তিনিতার গণ্ডদেশ বেয়ে গড়িয়ে পড়ে আনন্দাশ্রু২০০৪ সাল থেকে জনসম্মুখ থেকে নিজেকে সরিয়ে নিলেও এখনো সব কিছুই আবর্তিত হয় তাকে কেন্দ্র করেবিশ্বকাপ ট্রফি যেদিন তার কাছে নিয়ে যাওয়া হয়, সেদিন ফিফার জেনারেল সেক্রেটারি জেরোম ভালসকে তো বলেই দিয়েছেন, ‘দক্ষিণ আফ্রিকার গণতন্ত্রের প্রতীক নেলসন মান্দেলাএবারের ফিফা বিশ্বকাপ ফুটবলেরও তিনি অন্যতম স্থপতিআমরা তো ভাবতেই পারি না, বিশ্বকাপ ট্রফি আফ্রিকায় আসবে, আর সেটি তিনি সবার আগে স্পর্শ করবেন নাবিশ্বকাপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি উপস্থিত থাকতে পারবেন কিনা সেটা এখনও নিশ্চিত নয়তবে ফিফা প্রেসিডেন্ট সেপ ব্লাটার আশাবাদী, শারীরিকভাবে সুস্থ থাকলে তিনি বিশ্বকাপের উদ্বোধন করবেন

বিশ্বকাপ ফুটবল আয়োজনটা শুধু দক্ষিণ আফ্রিকার জন্য গৌরবের নয়এরসঙ্গে জড়িয়ে আছে আফ্রিকান মানুষের সন্মানের ব্যাপারযুগে যুগে আফ্রিকান কালো মানুষরা ছিলেন অবহেলিত, অনাদৃত ও উপেক্ষিতবড় কোনো আয়োজনের সঙ্গে তাদের যোগসূত্র ছিল নাবিশ্বকাপ ফুটবল এনে দিয়েছে সেই সুযোগএকজন কালো মানুষ নেলসন মান্দেলা বিশ্বকে দিয়েছেন রাজনীতির নতুন পাঠ, একজন বারাক ওবামা হয়েছেন বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিধর দেশ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টতাহলে কালো মানুষদের দেশ দক্ষিণ আফ্রিকাও কি পারবে না বিশ্বকাপ ফুটবল আয়োজন করে দুনিয়াকে দেখিয়ে দিতে? আফ্রিকান প্রতীক হয়ে ওঠা ৯১ বছর বয়স্ক মান্দেলা যখন আবেগ আর আনন্দাশ্রু নিয়ে ১৮ ক্যারটের খাঁটি সোনার বিশ্বকাপ ট্রফিটি ছুঁয়ে দিয়েছেন, তা আয়োজকদের কাছে হয়ে ওঠেছে মস্ত এক আশীর্বাদএই আশীর্বাদই বিশ্বকে দেখিয়ে দিতে পারে নতুন এক আফ্রিকাকেসেটাও হবে নেলসন মান্দেলার আরেকটি বিজয়যুগে যুগে বিজয়ী বীরদের নামই নেলসন মান্দেলা

 

দুলাল মাহমুদ, সম্পাদক, মাসিক ক্রীড়াজগৎ

ই-মেইল: dulalmahmud@yahoo.com

ঢাকা থেকে।

 

মন্তব্য:
khalil   June 1, 2010
khalil1577@yahoo.com
khalil   June 1, 2010

Shaon   May 31, 2010
Krijagat is not a monthly sports magazine, it's Fortnightly.
এ সপ্তাহের জরীপ

প্রেসিডেন্ট ওবামা ঠিকমত দেশ চালা্চ্ছেন।

 
Code of Conduct | Advertisement Policy | Press Release | Hard Copy Archive
© Copyright 2001 Porshi. All rights reserved.