Home | About Us | Porshi Team | Porshi Patrons | Event Announcement | Contact Us
হোমপেজ পুরনো সংখ্যা: সূচীপত্র  সাহিত্য  ||  ১০ম বর্ষ ২য় সংখ্যা জ্যৈষ্ঠ ১৪১৭ •  10th  year  2nd  issue  May - Jun  2010 পুরনো সংখ্যা
অসতী হয়েছে ময়না Download PDF version
 

সাহিত্য

ধারাবাহিক উপন্যাস

অসতী হয়েছে ময়না               

দীপিকা ঘোষ

১.

গাঁয়ের নাম রামচন্দ্রপুর। সব রকম নাগরিক সভ্যতার বাইরে বাংলাদেশের ফরিদপুর জেলার একেবারেই একটি প্রত্যন্ত গ্রাম এটি। সে গ্রাম আজও এমনিই প্রত্যন্ত যে সেখানে আজকের শহুরে সভ্যতার বিস্তীর্ণ প্লাবন সত্ত্বেও প্রাথমিক শিক্ষার পাদপীঠ পর্যন্ত প্রস্তুত হয়নি। অথচ কোনো রকম প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার সাহচর্য না পেয়েও শুধুমাত্র জীবনের প্রয়োজনে বহু বছর আগে এই গাঁয়েই ঘটে গিয়েছিল এক বিরাট বিপ্লব। আর সে বিপ্লবের প্রাণ প্রতিষ্ঠা করেছিলো একলা এক স্বামী পরিত্যক্তা অসহায় নারী।  

এই গাঁয়ের শেষ সীমায়,রামচন্দ্রপুরের পাদদেশ জুড়ে একদিন দুর্দান্ত জীবনের প্রবল আনন্দে প্রবাহিত ছিলো কুমার নদী। আজ তার শীর্ণকায় বুকের অতলে হারিয়ে গেছে সেই প্রবল হৃৎপিন্ডের সবটুকু আনন্দ। কিন্তু যখন কুমার নদীর যৌবনে আজকের মতো ভাটির টান লাগেনি তখন উচ্ছল সুখে উন্মত্ত হতে হতেই অর্ধচক্রাকারে সমস্ত গ্রাম ঘুরে মধুমতীর আলিঙ্গনে সে ধরা দিতো ফেনিল উচ্ছ্বাসে। আর সেই উচ্ছ্বাসের ছোঁয়াই যেন একদিন এসে ধরা দিয়েছিলো শিক্ষাসভ্যতার স্পর্শহীন এই অসহায় নারীর প্রাণের তরঙ্গে। আসলে আজ যে কাহিনীর কথা এখানে বলতে চাইছি তার জন্ম আরও কুড়ি বছর আগে ঘটে যাওয়া ময়না নামের একটি মেয়ের জীবনে ঘটে যাওয়া কিছু নির্মম ঘটনাপুঞ্জ। সবাই বলতো,ময়না নাকি জন্মেই ছিলো টুকরো টুকরো করে ছিঁড়ে ফেলা একখানা বিপর্যস্ত ভাগ্যলিপি নিয়ে। জন্মের পরেই সে মাকে হারিয়েছিলো। তারপরে কয়েক মাস পরেই মাত্র চার দিনের প্রবল জ্বরে বাবাকে। বড় অবহেলায়,বড় অসহায়ভাবে কোনোমতে দায়সারাগোছের জীবন নিয়ে সে বড় হয়েছিলো তার এক মামার কাছে। সেখানে মামামামীর ভালোবাসা ময়না কোনোকালেই পায়নি। তবুও চোদ্দ বছর বয়েস পর্যন্ত সে বড় হয়েছিলো সেখানেই।

জীবনের বহু চড়াই উৎরাই পেরিয়েও অসহায় জীবনের আকুতিতে সেখানে ময়না বিদ্রোহ করেনি কোনোদিন। কারণ ছেলেবেলা থেকেই তাকে শেখানো হয়েছিলো,এক অসফল জীবনের গুরুভার বয়ে বেড়াবার জন্যই জন্ম হয়েছে তার এবং সে জন্য সংসারে কারও বিরুদ্ধেই তার নালিশ থাকা উচিৎ নয়। এই সত্যকেই নিগূঢ় বিশ্বাসযোগ্যতায় অনেককাল পর্যন্ত মেনে নিয়েছিলো ময়না। কিন্তু একদিন জীবনের প্রবল ঘূর্ণিস্রোতে ডুবে গিয়ে যখন সে মৃত্যুর পথ পাড়ি দিচ্ছিলো তখনই এক অভাবনীয় ঘটনায় নিজের দীর্ঘকালের প্রচলিত বিশ্বাসে নিজের বেদনাময় জীবনকে মেনে নিতে বিদ্রোহ ঘোষণা করলো সে। বিদ্রোহ ঘোষণা করলো আত্মজাগরণের উদ্দীপ্ত শক্তিতে। আর সেই শক্তিতেই তীব্রভাবে বেঁচে উঠলো ময়না। সেই বেঁচে ওঠা এমনই প্রবল যে তার চারপাশের সমস্ত সামাজিক ধিক্কার,ধর্মীয় বিধিনিষেধ আর অজস্র মানুষের অমানুষিক ঘৃণাকে পায়ে দলে,অগ্রাহ্য করে ময়না একাই অনায়াসে এগিয়ে চললো তার ভবিষ্যতের পথে। যে ভবিষ্যৎ নিয়ে মানুষ নিয়ত স্বপ্ন দেখে। যে ভবিষ্যৎ নিয়ে জাগতিক পৃথিবীর মানুষ মখমলি আশায় বুক বাঁধে বেঁচে থাকার তীব্র আনন্দে।

২.

রামচন্দ্রপুর গ্রামের রাব্বুল মিঞা একেবারেই সচ্ছল কৃষক নয়। তার স্থাবর সম্পত্তি বলতে বাড়ীতে দুখানা মাটির ঘর আর কয়েক বিঘে মাঠান জমি। ঘরে স্ত্রী। দুই পুত্র। দুই কন্যা। সে জমির ফসলে সারা বছর তাদের পেট চলে না। সংসারে সচ্ছলতা আনতে মাঝে মধ্যে সে তাই ছোট খাটো একটি ব্যবসা করার চেষ্টা করে। তার এই ব্যবসা একান্তভাবেই পুঁজিবিহীন। তাই নিত্য আয়ের রোজগারের ধারাবাহিকতা তাতে নেই। হঠাৎ সুযোগ সুবিধে জুটলে কখনও কখনও পাঁচ দশ টাকা রোজগার হয়। আবার বুদ্ধি আর ব্যবসায়িক কৌশলের সংযোগে ভাগ্য সুপ্রসন্ন হলে লাভের অংশ বেশ সন্তোষজনকও  হয়ে ওঠে। আসলে রাব্বুল মিঞা গ্রাম থেকে গ্রামান্তরে ঘুরে ঘুরে অল্প দামের গরু ছাগল বিক্রীর সংবাদ সংগ্রহ করে বাজারের দুজন কসাইয়ের কাছে পৌঁছে দেয়। এটাই তার পুঁজিবিহীন ব্যবসা। কসাইরা নির্দিষ্ট সময়ে উপস্থিত হয়ে মালের জন্য নতুন করে ফের দর কষাকষি করলেও লাভের অংশ তাতে বেশীরভাগ সময়েই অটুট থাকে। কারণ গ্রামবাসীরা বহু সময়েই রুগ্ন কিংবা অসুস্থ গরু ছাগল বিক্রীর জন্যই উদগ্রীব হয় বেশী। লাভের উচ্চাশা থাকলেও বাস্তব কারণেই অল্প দামে মাল তাদের ছেড়ে দিতে হয়।

অবশ্য রাব্বুল মিঞার লাভের অংশ কখনও কখনও এতে বেশী হলেও এ রকম গরু ছাগল আমদানি করবার সৌভাগ্য তার ব্যবসায়ে বেশীরভাগ সময়েই আসে না। তারপরেও এই পুঁজিবিহীন ব্যবসাটাকে বিশেষভাবে পছন্দ করে সে। কারণ রাব্বুল মিঞার চরিত্রে একটি ভবঘুরের নেশা আছে। গ্রাম থেকে গ্রামান্তরে উন্মুক্ত আকাশের নিচে ঘুরে বেড়াতে ভালোবাসে সে। এই পরিভ্রমণের জন্য একটি বাহনও আছে তার। অনেক কষ্টে অর্জিত টাকায় অনেক বছর আগে কেনা পুরনো মডেলের একখানা সাইকেল। সেই সাইকেলে চড়েই মাইলের পরে মাইল শূন্য প্রান্তর অথবা গ্রাম গঞ্জ পেরিয়ে রাব্বুল মিঞা ঘুরে বেড়ায় মুক্ত বিহঙ্গের মতো বাধা বন্ধনহীন। কখনও মেঘভাঙা সূর্যের আলো গায়ে মেখে। কখনও গনগনে প্রখর তপনের দহনে দগ্ধ হয়ে। আবার কখনও বা বাদলঝরা দিনের শীতল বাতাসে জড়সড় হয়ে। দিনের পরে পরে দিন আসে। পেরিয়ে যায় মাসের পরে মাস কিংবা বছর। ছেলেরা এরই মধ্যে বুঝে ফেলেছিলো এমন ভবঘুরে বাপের আয়ে সংসার চলবে না তাদের। এখন বড় হয়ে সংসারের হাল তারা তাই নিজেদের হাতেই তুলে নিয়েছে।

রাব্বুল মিঞার জ্যেষ্ঠ সন্তান ছুরহাব মিঞা তার বাপজানের একেবারে বিপরীত। যদিও দু চোখে যৌবনের স্বপ্ন মেখে জীবনটাকে নিয়ে ভাবতে চাইছিলো সে,কিন্তু জীবনের বাস্তবতাকে অন্ধভাবে অগ্রাহ্য করবার মতো নির্বোধ সে ছিলো না। মাঠের সামান্য জমিতে তাদের সারা বছরের অন্নের সংস্থান করা সম্ভব নয় জেনেই সামান্য পুঁজিতে এক ব্যবসায়ের কাজে নেমেছিলো ছুরহাব। দু তিনটি নির্দিষ্ট গ্রাম থেকে প্রতি সপ্তাহে সে হাঁস মুরগীর ডিম সংগ্রহ করে আনতো, তারপরে বাজারের খুচরে বিক্রেতাদের কাছে সামান্য লাভে বেচে আসতো প্রতি শুক্রবারের হাটে। তাতে পরিশ্রমের মাত্রা যেমন কম, সন্তোষজনক লাভের মাত্রাও তেমনি সীমিত। কিন্তু তাতে একটি নির্দিষ্ট আয়ের ধারা বজায় ছিল নিয়মিত। সেই জন্যই মনে মনে খুশী সে।

পুত্রের রোজগারের নিশ্চয়তায় রাব্বুল মিঞা অনেকখানি নিশ্চিন্ত এখন। অবশ্য তার পুরনো ব্যবসাটাকে সে পরিত্যাগ করেনি। কারণ তার ভবঘুরে স্বভাবই বার বার তাকে ঠেলে পাঠায় বাইরে। আগের মতোই রাব্বুল মিঞা মাঝে মধ্যেই বেরিয়ে পড়ে পুরনো বাহনটিকে সঙ্গে নিয়ে। স্ত্রী জোবেদা বেগম স্বামীর এই অনাসৃষ্টি কা- নিয়ে ক্ষিপ্ত হয়ে কটূক্তি করলেও বহুকালের অভ্যাসে স্ত্রীর সব রকম আলাপনই অভ্যাস হয়ে গিয়েছিলো রাব্বুল মিঞার। জোবেদা বেগমের মন্তব্যে যত ক্ষুরধারই থাক,তার অনুভবের শরীরে তাতে আঁচড় পড়ে না। আজ খানিকটা সকালবেলাতেই সে বেরিয়ে পড়েছিলো মানিকচর গ্রামে যাওয়ার উদ্দেশ্যে। গেলো সপ্তাহেই বাজারের মধ্যে সেই গাঁয়ের নঈমুদ্দী নামের এক ব্যক্তির সঙ্গে পরিচয় হয়েছিলো তার। নঈমুদ্দীই তাকে জানিয়েছিলো তার প্রতিবেশী মোহন খাঁ শিগগীরই এক জোড়া ছাগল বিক্রীর কথা ভাবছে। তাড়াতাড়ি যোগাযোগ না করা হলে সে মাল সে সামনের হাটেই বিক্রী করে দেবে। কারণ ছাগল দুটো তেমন সুস্থ নয়। স্ত্রীর বারণ সত্ত্বেও মাঠের কাজ ফেলে আজ তাই সাত সকালেই রাব্বুল মিঞা বেরিয়ে এসেছিলো গৃহ ছেড়ে।                                         

বহুকাল অনাবৃষ্টির কারণে একটু বেলা বাড়লেই আজকাল রোদের তেজ বড় প্রচন্ড হয়ে ওঠে। আজও উঠেছিলো। ঘামের স্রোতে এরই মধ্যে রাব্বুল মিঞার শরীর ঘেমে জলে থৈ থৈ। সে সাইকেল থামিয়ে পথের পশে দাঁড়িয়ে থাকা অর্ধ শতাব্দীর এক বিশালদেহী বটগাছের ছায়ায় এসে দাঁড়ালো। নঈমুদ্দীর নির্দেশ মতোই  মানিকচরের পথ ধরেছিলো সে। মানিকচর গাঁয়ের সীমান্তের বাইরে এই সেই নঈমুদ্দী কথিত বুড়ো বটের পথ। এই পথে আরেকটু এগিয়ে গেলেই সামনে মানিকচর গ্রাম।                                                                                        

গাছের ছায়ায় অনেকক্ষণ নিঃশব্দে বসে থেকে জিরিয়ে নিচ্ছিলো রাব্বুল মিঞা। খুব শিগগীরিই বৃষ্টি হবার বিন্দুমাত্র সম্ভাবনা নেই। বিস্তীর্ণ আকাশের নীল দিগম্বর শরীরে সূর্যের অত্যুজ্জ্বল শিখা আতসকাঁচের মতো ঝলসাচ্ছিলো সারাক্ষণ। চৈত্র মাস পেরিয়ে গেলেও এখনও মাটির হৃদয় বৃষ্টির ছোঁয়া পায়নি। উত্তপ্ত দুপুরে চারদিকে যতদূর দৃষ্টি চলে তাকালেই মনে হয়, তামাম দুনিয়া জুড়ে যেনো এক অসহ্য আগুনের হোলি খেলা শুরু হয়ে গেছে। সময় গড়িয়ে যাচ্ছিলো বলেই এক সময় বাধ্য হয়ে ছায়াঘেরা নির্জন স্থান থেকে উঠতে হলো রাব্বুল মিঞাকে। একটু পরেই মানিকচর গাঁয়ের শরীরের ভেতর ঢুকে পড়লো সে। চলতে চলতে হঠাৎ তার চোখে পড়লো চার পাঁচজন কিশোরী মেয়ে কুলো মাথায় বৃষ্টি নামাবার গান গাইতে গাইতে চলেছে রাস্তা দিয়ে। তাদের দেখেই সাইকেল থামিয়ে নেমে পড়লো সে। কারণ একটি কিশোরী প্রচ-ভাবে দৃষ্টি আকর্ষণ করেছিলো তার। সবার মাঝখানে তাকে দেখাচ্ছিলো সরোবরের সবুজ জলে ফুটে থাকা সম্পূর্ণ পুষ্পিত ঝলমলে এক শ্বেতপদ্মের মতো। তার ডোরাকাটা লালনীল শাড়ীর রঙে তার গৌরবর্ণ রঙ ফেটে পড়ছিলো যেনো মুখরিত হয়ে।

রাব্বুল মিঞা দ্রুত পায়ে এগিয়ে এসে ¯স্নেহপূর্ণ স্বরে মুগ্ধ চোখে তাকিয়ে প্রথমেই জিজ্ঞেস করলো -                                                    তুমার আব্বার নাম কী?                                                                                                                       

প্রশ্নটি কাকে করা হলো বুঝতে না পেরে সংকোচপূর্ণ দ্বিধাগ্রস্ত চোখে পরস্পরের দিকে তাকালো কিশোরীরা। এ মুখ তাদের পরিচিত নয়। রাব্বুল মিঞা শ্বেতপদ্মের মতো মেয়েটির দিকে আঙুল তুলে এবার জানতে চাইলো - তুমার আব্বার নাম কী?                                                                                                                                                         

এবার এক জনের জবাব পাওয়া গেলো। মেয়েটি বললো - ওর আব্বা নাই।                                                                          এক মুহূর্ত নীরব থেকে মেয়েটি আবারও বললো - ওর মাও নাই। অনেক ছোটবেলায় মইরে গেছে। মামা মামীর কাছে থাকে। রাব্বুল মিঞা সঙ্গে সঙ্গেই গলায় একরাশ সহানুভূতি ঝরিয়ে বললো - আহা বাপ মা নাই তুমার! তাইলে চলো,তুমার মামার কাছেই যাই।                                                                                                                                              

কিশোরীরা এমন প্রস্তাবে আবারও দ্বিধান্বিত হলো। তারা তখন বৃষ্টির নামাবার জন্যই সমস্ত গ্রামে উদগ্রীব হয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছিলো, হঠাৎ তাতে বাধা পড়ায় আরও একবার পরস্পরের মুখে তাকালো তারা। পুরো ব্যাপারটা বুঝে নিয়ে রাব্বুল এবার শ্বেতপদ্মের মুখেই সরাসরি তাকিয়ে প্রস্তাব করলো - চলো,তুমার সাথে যাই।                                                                           

মেয়েরা একযোগে এমন প্রস্তাবে রাজি হয়ে বললো - তুই তাইলে যা ময়না,পরে আসিস আবার। উনারে  তোর মামার কাছে দিয়েই চইলে আসিস। আমরা ওই বাড়ীতে যাচ্ছি,বলে খানিকটা দূরে দাঁড়িয়ে থাকা একখানা টিনের ছাদওয়ালা বাড়ীর দিকে এক কিশোরী আঙুল তুলে দেখালো।

ময়না মাথা নাড়লো নিঃশব্দে। তারপরে নিজের বাড়ীর দিকে আগন্তুককে নিয়ে হাঁটতে আরম্ভ করলো ধীরে ধীরে। অন্য মেয়েগুলোর তুলনায় স্বভাবের দিক থেকে সে যে একেবারেই নিঃশব্দ ধরনের খুব সহজেই সেটা অনুমান করতে পারলো রাব্বুল মিঞা এবং এতে   তার মুখের ওপর ভালোলাগার একটি শান্ত হাসি ছড়িয়ে পড়লো সঙ্গে সঙ্গে । অনেক পা একসঙ্গে চলেও ময়না আগের মতই নীরবে পথ চলছিলো অচেনা লোকটাকে সঙ্গে নিয়ে। অনেক সময় পরে তাই কথা বলার জন্যই যেনো রাব্বুল মিঞা বলে উঠলো - তুমার নাম বুঝি ময়না? বাঃ! খুব সোন্দর নাম!                                                                                            

উত্তরে ময়না নিঃশব্দেই মাথা দোলালো মুখে কোনো জবাব না দিয়ে। ময়নার জীবন সম্পর্কে ছুরহাব মিঞার ভবঘুরে বাপজানের বহু কিছু জানার আগ্রহ হয়েছিলো। কিন্তু কিছু না জেনেও এই নিতান্ত  লাজুক আর স্বল্পবাক মেয়েটিকে অসম্ভব ভালো লেগে গিয়েছিলো  তার। তাই অকারণে মেয়েটিকে ব্যতিব্যস্ত করার ইচ্ছে রাব্বুল মিঞার ছিলো না। বাড়ীর কাছে আসতেই দেখা হয়ে গেলো ময়নার মামার সঙ্গে। মামা তখন সবেমাত্র গাঁয়ের একমাত্র পুকুরঘাট থেকে স্নান সেরে উদোম গায়ে গামছায় আধখানা মাথা ঢেকে বাড়ী ফিরে আসছিলো। রাব্বুল মিঞার দিকে  দৃষ্টি পড়তেই সন্দিগ্ধভাবে ময়নার মুখে সপ্রশ্ন চোখে তাকালো সে। মামাকে দেখেই থেমে পড়লো ময়না। তারপরে পেছনে তাকিয়ে এতক্ষণ পরে আগন্তুকের উদ্দেশ্যে কথা বললো সে -                                                  

এই আমার মামা।                                                 

মামার কাছে সমস্তই খুব দুর্বোধ্য ঠেকছিলো। রাব্বুল মিঞাকে জীবনে সে চোখে দেখেনি। অথচ ময়না তাকে নিয়ে পরিচয় করাতে এসেছে তার সঙ্গে। তার মনের ভাব মুখের চেহারায় এতটাই বেশী সুপরিস্ফুট হয়ে উঠছিলো যে ময়না সেই মুখে তাকিয়ে মরমে প্রায় মরে যেতে চাইছিলো। ছেলেবেলা থেকেই সব রকমের স্বাধীনতাবঞ্চিত সে। শাসনের নিষ্ঠুর নিগড়েই তার পুরো মনটা বাঁধা। কিন্তু এমন অস্বস্তিকর পরিস্থিতি থেকে মুহূর্তেই তাকে উদ্ধার করলো রাব্বুল মিঞা। ঠোঁটের রেখায় মৃদু হাসি ছড়িয়ে মৃদু স্বরে কথা বললো সে - এইবার তুমার যাও মা! আর লাইগবে না।         

ময়না চলে যেতে পথে দাঁড়িয়েই নিজের অভিপ্রায়ের কথা সরাসরি ব্যক্ত করলো রাব্বুল মিঞা। ময়নাকে জ্যেষ্ঠ সন্তান ছুরহাব মিঞার স্ত্রী করে ঘরে নিতে চায় সে। মামা রাজি হলে শুভ কাজটি শিগগীরিই করে ফেলায় তার কোনো আপত্তি নেই। রাব্বুল মিঞার প্রস্তাবটাকে দীর্ঘকালের অভূক্ত ভিখিরির মতো সঙ্গে সঙ্গেই লুফে নিলো ময়নার মামা। ছোট বড় মিলিয়ে আটজন সন্তানের সহাবস্থান তার ঘরে। নিজ সন্তানদের গুরুভার তবু তার সহ্য হয়। কিন্তু ময়নার বোঝা প্রথম থেকেই তাদের ওপরে সবার বড় হয়ে উঠেছে তার কাছে। বিশেষ করে মামীর কাছে সংসারে ময়নার নিত্যদিন উপস্থিতি কেবল বৃহৎ বোঝা নয়,প্রতিমুহূর্তে হুতাশনের স্পর্শের সামিল। তার দেহমন জ্বলেপুড়ে তাতে ভাজা ভাজা। এই মেয়ে তার স্পর্শ থেকে অন্য কোথাও চিরতরে স্থায়ী হলেই কেবল এই হুতাশনের জ্বালা নেভানো সম্ভব হয় তার পক্ষে। তাই যে কোনো স্থানে ময়নার একটা হিল্লে হলেই বেঁচে যায় তার মামা।

মামা সঙ্গে সঙ্গে রাজী হয়েই একগাল হেসে ফেলে বললো - খুবই ভালো কথা! তাড়াতাড়ি কামখান কইরে ফ্যালতে পারলে আমার কুনো আপত্তি নাই। আপনি যতি চান,আইজই ময়নারে নিয়ে যেইতে পারেন!                                                                                                             

রাব্বুল মিঞা মামার এমন বক্তব্যে খানিকটা হোঁচট খেলেও  আবারও হেসে ফেলে বললো - বিয়ে সাদির ব্যাপার তো দুই চাইর দিন সুময় লাইগবে। আইজই তো তারে পেরথম দেখলাম আমি। বাড়ী যেইয়ে সবার সাথে এট্টু কথাবাত্রা বইলে তারপর তিন চাইর দিন পরে আইসতে পারবো।                                                                                                                               

এমন বক্তব্যে মামার মুখের ভাব পাল্টালো না। সে গম্ভীর হয়ে জানতে চাইলো - আইসতে পারবেন মানে কী? ওইদিন ময়নারে বউ কইরে বাড়ী নিয়ে যাবেন?                                                                                                               

রাব্বুল মিঞার বুকে উৎসাহ আর প্রফুল্লতা দুইই বিরাজ করছিলো তখন। সে মৃদু হেসে নীরবে কয়েকবার ঘাড় দুলিয়ে জবাব দিলো - আপনি কাজটাজি আইনে বিয়ের কাম সব ঠিকঠাক কইরে রাইখবেন। সাদির কামটা হইয়ে গেলেই...।

মামার গলায় এবারও উৎসাহিত হবার বিশেষ কোনো লক্ষণ দেখা গেলো না। সে যে রাব্বুল মিঞার এই প্রস্তাবটাকে এখনও বিশ্বাস করতে পারেনি, পরক্ষণে সেই মনোভাবই ধরা পড়লো তার কথায়। সে আগের মতোই বিমর্ষ মুখে বললো -  আগেই কাজিটাজি ঠিক কইরে কী হবে? আপনারা যতি শ্যাষে না আসেন!                                                                     রাব্বুল মিঞা এবার সত্যি সত্যি অবাক হলো খুব। বিরক্তও হলো অনেকখানি। কিছুক্ষণ নিরুত্তর থেকে বিশ্বাসী গলায় বললো - আইসবো না ক্যান? আমি আপনারে কথা দেচ্ছি না? ময়নারে খুব পছুন্দ হইয়েছে আমার!

বিয়ের ব্যবস্থা পাকাপাকি করতে পেরে আনন্দের উচ্ছ্বাসে মানিকচরের নঈমুদ্দী কথিত ছাগল বিক্রীর কথাটা একেবারেই ভুলে গেল রাব্বুল মিঞা। তখনই সাইকেলে চড়ে উল্কাবেগে ছুটে চললো সে রামচন্দ্রপুর গাঁয়ের দিকে। কথাটা সবাইকে শিগগীরই জানানো দরকার। কারণ পুত্রবধূর আগমন উপলক্ষে সাধ্য অনুযায়ী ছোট খাটো কিছু আয়োজন তাকেও করতে হবে। নিকটতম দুই এক ঘর আত্মীয় স্বজনকেও জানাতে হবে শুভ সংবাদটা। প্রতিবেশীদের  দাওয়াত দেবার ব্যবস্থার কথাও ভাবতে হবে। কিন্তু আয়োজনের তুলনায় হাতে সময় বড় অল্প। ছুরহাব মিঞার একখানা লুঙ্গি পাঞ্জাবী কেনার দরকার আছে।  ময়নার জন্যও শাড়ী,আলতা,চুড়ি চাই। তার জন্য দ্রুত কিছু টাকা সংগ্রহের প্রয়োজন। অতএব সমস্ত পথ আনন্দ আর চিন্তামগ্নতায় আচ্ছন্ন হতে হতেই রাব্বুল মিঞা মানিকচর থেকে রামচন্দ্রপুর গাঁয়ে এসে উপনীত হলো। 

ছুরহাব মিঞার এমন আচমকা হঠাৎ বিয়ের সিদ্ধান্তে বাড়ীতে বিস্ময়ের অন্ত রইলো না কারও। একটি লাভজনক ব্যবসায়ের কাজেই আজ সকালবেলায় বেরিয়েছিলো  সে। যদিও বহু বছরের অভিজ্ঞতায় তার এমন আশ্বাসে প্রত্যয় ছিলো না কারও, তবুও ব্যবসায়ের উদ্দেশ্যে যখন সে বাড়ী ছেড়েছিলো তখন কেউ ভাবতেও পারেনি এ রকম একটি ঘটনার জন্ম দিয়ে আজ বাড়ী ফিরে আসবে রাব্বুল মিঞা। তাই বাড়ী ফিরে ব্যবসায়িক লাভের বদলে যখন সে শুরুতেই আনন্দে বিগলিত হয়ে ছুরহাব মিঞার বিয়ের সংবাদ শোনালো তখন জোবেদা বেগম আনন্দে নয়, বিষ্ফারিত হলো বিপুল বিরাগে। সহসা সে চেঁচিয়ে বললো -                                                                                                                                               

এক ট্যাকা রুজগার করবার যার মুরোদ নাই,সে আবার ছেইলের বিয়ে ঠিক কইরতে চায়! ঘরে দুইখান মেইয়ে!  হুঁশ নাই তুমার? এখুনই ছেইলের বিয়ে কিসের?                                                                                                                           

স্ত্রীর রুদ্র মূর্তি উপেক্ষা করে রাব্বুল মিঞা প্রতিবাদী হতে চাইলো - তুমার মেইয়েরা তো আর এখুনও ডাঙ্গুর হইয়ে সারে নাই ছুরাব মিঞার মা। কিন্তুক ময়না তুমার ছেইলের জন্যে চাইর পাঁচ বচ্ছর বইসে থাইকবে না!                                                                             না থাক! তামাম দইনায় মেইয়ের অভাব?                                                                                                                

এই রকম মেইয়ের অবশ্যই অভাব! আহা কী চিহারা! এক্কেবারে যেন্ সুনার পিত্তিমে! আবার স্বভাবখান সেই রকম! তার ভালো মান সুন্মানের  গিয়ানও আছে! রাব্বুল মিঞা কথাগুলো বেশ গুছিয়ে ভাবগাম্ভীর্যে উচ্চারণ করলো।

কিন্তু  কথাগুলো কেবল জোবেদা বেগমকে লক্ষ্য করে নয়,বিশেষভাবে ছুরহাব মিঞার উদ্দেশ্যেই ছুঁড়ে দিলো সে। ছুরহাব মিঞা স্বভাবে তার মায়ের মতোই বাস্তবতাকে চেনে। কিন্তু তারপরেও বাপজানের কথা শুনে তার মনের পত্র পল্লবে মধুরিমার ছোঁয়া লেগে গেলো অনেকখানি। এখন সে বাইশ বছরের স্বাস্থ্যোজ্জ্বল এক নবীন যুবক। বাস্তবের ভগ্ন রথে চড়েও হৃদয় তাই স্বপ্নের রাজপ্রাসাদে হারিয়ে যায় বহুবার। স্বভাবতই তার যৌবনধর্ম মায়ের বাস্তবতা ডিঙিয়ে রোমান্টিক মাধুর্যের লুকোচুরি খেলায় ময়নাকে পাওয়ার জন্য বার বার ব্যাকুলিত হলো রোমাঞ্চকর শিহরণে। তার মন বললো - আহা! না জানি কেমুন দেইখতে সেই সোনার পিত্তিমে!                                                                                           

ময়নার মুখ ভাবতে ভাবতে বাপজানের শেষ কথায় ধীরে ধীরে তার সারা মুখের ওপর নরম প্রসন্নতার আল্তো স্তর একেবারে ঠেসে ঠেসে নিভাঁজ হয়ে রইলো এরপরে।

ক্রমশ:    
 

মন্তব্য:
lllllyuan   June 28, 2016
6.28llllllyuan

tiffany outlet

tiffany and co

tiffany outlet

michael kors outlet

christian louboutin outlet

fitflop clearance

ray-ban sunglasses

true religion jeans sale

gucci outlet

coach outlet

ray ban sunglasses

ray-ban sunglasses

hermes belt for sale

cazal sunglasses

lululemon pants

reebok shoes

mont blanc pens

football shirts

true religion jeans outlet

christian louboutin outlet

polo ralph lauren outlet

nike air force 1

futbol baratas

michael kors outlet

longchamp pliage

prada sunglasses

ray ban sunglasses

juicy couture tracksuit

celine outlet

cheap jordan shoes

louis vuitton handbags

polo ralph lauren

michael kors factory outlet

michael kors outlet

mulberry handbags

nike air force 1

calvin klein underwear

ferragamo shoes

longchamp outlet

fitflops sale

mlb jerseys

coach outlet store

kobe shoes

gucci sunglasses uk

asics

nike free run

rolex watches

christian louboutin shoes

soccer jerseys wholesale

mulberry outlet

cheap football shirts

links of london jewellery

tory burch outlet

tiffany jewelry

coach outlet

kate spade uk

mulberry outlet

rolex orologi

true religion jeans

lululemon outlet online

louis vuitton outlet store

christian louboutin outlet

michael kors clearance

hollister shirts

rolex watches

michael kors handbags wholesale

true religion outlet

polo ralph lauren

polo outlet

mulberry outlet

louis vuitton pas cher

oakley sunglasses

true religion outlet

true religion outlet uk

cheap oakley sunglasses

mulberry outlet,mulberry handbags outlet

nike uk store

michael kors handbags outlet

tory burch outlet

beats headphones

michael kors canada

swarovski outlet

louboutin pas cher

christian louboutin online

burberry outlet

toms shoes

air max 90

michael kors outlet

christian louboutin shoes

adidas uk store

fitflops sale clearance

celine outlet online

michael kors outlet

tiffany and co

nike air max

coach outlet

mulberry handbags

lacoste shirts

tory burch sandals

tory burch outlet online

nike blazer pas cher

coach outlet online

michael kors handbags

beats by dre

tiffany outlet

coach outlet store

prada shoes

longchamp outlet

lululemon outlet

toms outlet

michael kors outlet

michael kors outlet

hollister

nike tn pas cher

tory burch outlet online

ralph lauren femme

fitflops clearance

adidas uk

ralph lauren uk

true religion uk

prada sneakers

michael kors uk

ray ban sunglasses

louis vuitton handbags outlet

louis vuitton neverfull

cheap nfl jerseys

louis vuitton outlet

ferragamo outlet

christian louboutin uk

ray ban sunglasses

cheap mlb jerseys

ray ban sunglasses

soccer jerseys

cheap oakley sunglasses

lacoste polo shirts

burberry outlet online

cheap oakley sunglasses

ralph lauren outlet

swarovski outlet

louis vuitton outlet

fitflops sale

ralph lauren outlet

michael kors bags

ray-ban sunglasses

coach outlet store

adidas wings

louis vuitton outlet

prada outlet

ferragamo outlet

michael kors outlet

nike air max 2015

coach outlet store

ray-ban sunglasses

hermes outlet

toms shoes

cheap nba jerseys

louis vuitton handbags outlet

louis vuitton pas cher

michael kors uk

longchamp outlet online

ray ban sunglasses

cheap jordan shoes

ferragamo shoes

asics,asics israel,asics shoes,asics running shoes,asics israel,asics gel,asics running,asics gel nimbus,asics gel kayano

timberland boots

bottega veneta outlet online

fitflop sale

mulberry handbags sale

tiffany outlet

air max 90

cheap nfl jerseys

oakley sunglasses

pandora outlet

michael kors outlet clearance

michael kors uk

tiffany jewellery

police sunglasses

michael kors outlet

ray ban sunglasses

swarovski crystal

michael kors handbags clearance

oakley sunglasses

nfl jersey wholesale

coach outlet store

nike roshe run

replica watches

toms outlet

beats by dr dre

chaussure louboutin

michael kors online outlet

hermes outlet

cazal outlet

cheap nfl jersey

ralph lauren polo

jordan pas cher

kobe bryant shoes

michael kors outlet

michael kors handbags

cheap jordans

mbt shoes

air max 2015

ralph lauren outlet

nba jerseys

ray-ban sunglasses

longchamp outlet

herve leger dresses

swarovski outlet

louis vuitton sunglasses

ralph lauren uk

burberry outlet

nike huarache

true religion uk outlet

adidas wings shoes

true religion jeans

swarovski crystal

coach outlet online

polo ralph lauren

air force 1 shoes

louis vuitton handbags

louis vuitton neverfull sale

cartier uk

jordan shoes

air max 90

nike tn pas cher

adidas outlet store

hollister shirts

ralph lauren polo

coach outlet online

rolex watches

coach outlet

mulberry handbags sale

air jordan shoes for sale

versace sunglasses

oakley sunglasses sale

ray ban sunglasses sale

timberland shoes

michael kors outlet

rolex watches for sale

hollister clothing

polo ralph lauren

louis vuitton bags

michael kors handbags clearance

lebron shoes

nba jerseys

rolex watches

tiffany and co

basketball shoes,basketball sneakers,lebron james shoes,sports shoes,kobe bryant shoes,kobe sneakers,nike basketball shoes,running shoes,mens sport shoes,nike shoes

cartier watches for sale

rolex watches for sale

fitflops shoes

michael kors outlet

ralph lauren outlet

fitflops sale

rolex watches

kate spade uk outlet

coach outlet

polo ralph lauren

coach outlet online

true religion jeans

michael kors wallet

jordan shoes 2015

mulberry handbags

ralph lauren outlet

coach factory outlet

mcm backpack

nike air max 90

soccer jerseys

cheap replica watches

louis vuitton pas cher

ray ban sunglasses sale

polo ralph lauren

coach handbags outlet

polo ralph lauren

true religion outlet

air max 90

michael kors outlet online

nike free 5.0

fitflops sale clearance

coach outlet online

nike air force 1

oakley sunglasses wholesale

true religion jeans

burberry sunglasses on sale

tory burch outlet

true religion jeans

rolex outlet

michael kors online

michael kors outlet clearance

ferragamo outlet

lululemon outlet

toms outlet

gucci outlet online

michael kors outlet

burberry outlet

christian louboutin outlet

oakley sunglasses wholesale

fitflops sale clearance

christian louboutin uk

omega watches

true religion outlet

tory burch shoes

iphone case uk

rolex watches,rolex watches,swiss watches,watches for men,watches for women,omega watches,replica watches,rolex watches for sale,rolex replica,rolex watch,cartier watches,rolex submariner,fake rolex,rolex replica watches,replica rolex

longchamp handbags

air jordan shoes

rolex watches outlet

true religion jeans

montblanc pens

oakley sunglasses

longchamp solde

longchamp pliage

hermes belt

louis vuitton bags

burberry outlet store

nike air max 90

michael kors outlet online

michael kors handbags

longchamp handbags

coach outlet online

tiffany and co

burberry sunglasses

adidas shoes

longchamp pas cher

oakley sunglasses

ralph lauren outlet

cheap nba jerseys

kate spade handbags

prada sunglasses for women

ray ban sunglasses

michael kors outlet

louis vuitton bags cheap

reebok trainers

dior outlet

fitflops uk

oakley sunglasses wholesale

michael kors canada

cartier outlet

louis vuitton handbags

michael kors outlet

beats by dre

hollister sale

reebok outlet store

swarovski crystal

cheap nhl jerseys

fitflops shoes

tiffany and co jewelry

michael kors handbags

ralph lauren shirts

true religion jeans

omega outlet

true religion jeans

mulberry bags

cheap ray ban sunglasses

camisetas futbol baratas

coach outlet online

longchamp outlet

thomas sabo uk

hermes birkin bag

michael kors outlet

louis vuitton handbags

lebron james shoes

michael kors wholesale

coach outlet

michael kors uk outlet

toms outlet

replica watches

michael kors outlet clearance

oakley sunglasses uk

polo shirts

michael kors factory store

chaussure louboutin

oakley sunglasses

cheap oakley sunglasses

calvin klein outlet

nike huarache

adidas outlet

prada outlet online

cheap ray ban sunglasses

basketball shoes

ralph lauren outlet

nike air huarache

ferragamo shoes

tiffany and co

dior sunglasses

mulberry handbags

hollister uk

swarovski crystal

tiffany outlet

tiffany jewellery

michael kors outlet

bottega veneta outlet

michael kors outlet

nike blazer pas cher

lululemon uk

rolex uk

ralph lauren,polo ralph lauren,ralph lauren outlet,ralph lauren italia,ralph lauren sito ufficiale

lululemon outlet

tiffany jewellery

ferragamo outlet

cartier watches

ray ban sunglasses

michael kors factory outlet

nike air max 90

fitflops sale

burberry outlet sale

cheap jordans

ralph lauren pas cher

beats by dr dre

air max 90

oakley sunglasses

lebron james shoes

nike air max 90

tory burch outlet

michael kors outlet

christian louboutin shoes

cartier watches

true religion outlet

polo ralph lauren

ray-ban sunglasses

true religion jeans

cheap mlb jerseys

coach handbags

sac louis vuitton pas cher

hollister clothing

beats headphones

tory burch outlet

beats by dre

mulberry bags

ferragamo shoes sale

true religion jeans

ralph lauren uk

fitflops uk

michael kors uk

tiffany and co

juicy couture outlet

coach outlet canada

rolex watches

ralph lauren polo

mulberry handbags

mlb jerseys

iphone case

true religion canada

longchamp pliage

chrome hearts outlet

true religion outlet

ralph lauren polo shirts

ralph lauren pas cher

ray ban sunglasses

michael kors handbags

true religion outlet

louis vuitton sunglasses for women

mulberry handbags

hollister uk

babyliss flat iron

michael kors handbags outlet

ralph lauren

fitflops outlet sale

hermes bags

ferragamo shoes

louboutin pas cher

swarovski outlet

mont blanc outlet

michael kors outlet

oakley sunglasses

mbt shoes outlet

longchamp solde

herve leger outlet

ralph lauren uk

burberry outlet store

adidas trainers

gucci sunglasses

true religion jeans

louis vuitton outlet online

mont blanc pens

mcm outlet

longchamp handbags

fitflops clearance

hermes outlet store

tory burch shoes

nfl jerseys

michael kors outlet online

police sunglasses for men

michael kors outlet store

tory burch outlet online

links of london

cheap jordans

longchamp handbags

cartier outlet store

ray ban sunglasses

rolex watches

babyliss pro

kobe shoes

chrome hearts outlet

lebron shoes

true religion jeans

tiffany jewelry

nhl jerseys

swarovski crystal

snapbacks wholesale

ray ban sunglasses

pandora jewelry

michael kors uk outlet

ferragamo shoes

nike air huarache

cartier sunglasses for men

cheap soccer jerseys

pandora jewelry

cheap michael kors handbags

michael kors outlet

louis vuitton bags

michael kors outlet online

kate spade uk

tiffany jewelry

hollister clothing store

coach outlet

tory burch outlet

hermes birkin

chrome hearts outlet online

swarovski jewelry

coach outlet store

ferragamo outlet

beats headphones

ray-ban sunglasses

coach outlet

true religion sale

tory burch outlet online

reebok shoes

longchamp handbags

chrome hearts

prada outlet

nfl jerseys wholesale

nike store uk

coach outlet

swarovski jewelry

louis vuitton outlet

longchamp outlet

longchamp pliage

ray-ban sunglasses

ghd uk

louis vuitton outlet stores

swarovski crystal

oakley sunglasses

pandora outlet

ralph lauren pas cher

fitflops outlet

fitflops clearance

toms outlet store

cartier sunglasses

ralph lauren polo

longchamp pas cher

michael kors handbags

michael kors outlet online

jordan pas cher

kobe bryants shoes

ralph lauren uk

ralph lauren outlet

versace sunglasses on sale

mulberry sale

jordan shoes

thomas sabo outlet

nike roshe

mulberry uk

oakley sunglasses wholesale

prada handbags

hollister

rolex watches for sale

ghd hair straighteners

michael kors wallet sale

toms shoes

michael kors handbags

cheap snapbacks

longchamp

ferragamo shoes

louis vuitton handbags

michael kors outlet uk

burberry outlet online

6.28
Mr Ram    June 23, 2010
Its realy good story.
Md. Kabir   June 19, 2010
Khub valo leka. waiting for next seris.
sumon mitra   June 17, 2010
Mame realy good. Im waiting for next.
Mr. Latnuk   May 29, 2010
Boudi - khoob bhalo lekha. Will wait for the next series.
Tanmay Bhowmik   May 24, 2010
Bhalo hocche mami. Chalie jan.
Somanath Dev   May 22, 2010
Dipika Ghosh is a very good writer. She clearly highlighted the main character, Maina in this article. Her writings reminded me about the poor in the rural area of Bangladesh. I do not miss her writing.
এ সপ্তাহের জরীপ

প্রেসিডেন্ট ওবামা ঠিকমত দেশ চালা্চ্ছেন।

 
Code of Conduct | Advertisement Policy | Press Release | Hard Copy Archive
© Copyright 2001 Porshi. All rights reserved.