Home | About Us | Porshi Team | Porshi Patrons | Event Announcement | Contact Us
হোমপেজ পুরনো সংখ্যা: সূচীপত্র  উত্তর আমেরিকায় কর্মকান্ড  ||  ৯ম বর্ষ ১২তম সংখ্যা চৈত্র ১৪১৬ •  9th  year  12th  issue  Mar - Apr  2010 পুরনো সংখ্যা
অ্যারিজোনায় অমর একুশে পালিত Download PDF version
 

উত্তর আমেরিকায় কর্মকান্ড

 

অ্যারিজোনায় অমর একুশে পালিত

 

শেখ ফেরদৌস শামস ভাস্কর

 

সম্মিলিত একুশে উদযাপন পরিষদের উদ্যোগে ফিনিক্সে উদযাপিত হল আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস তথা অমর একুশে। প্রথমে অ্যারিজোনা স্টেট ইউনিভার্সিটির উন্মুক্ত প্রাঙ্গণে ২০শে ফেব্রুয়ারী হবার কথা থাকলেও আকস্মিক বৃষ্টির পূর্বাভাসে অনুষ্ঠানটি পরিবর্তিত তারিখে ২১শে ফেব্রুয়ারী এবং পরিবর্তিত স্থানে একটি স্থানীয় ধর্মীয় উপাসনালয়ের মাল্টি পারপাস কক্ষে আয়োজিত হয়। শেষ মহূর্তের স্থান ও সময়ের পরিবর্তনের পরেও অনুষ্ঠানে উপস্থিতির সংখ্যায় কোন প্রভাব পরীলক্ষিত হয়নি।  

মঞ্চের উপর তৈরি করা হয় ঢাকার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের অনুকরণে একটি অস্থায়ী শহীদ মিনার। বাংলাদেশ আর যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় সঙ্গীতের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়। স্থানীয় সকল শিল্পীরা সমবেত ভাবে পরিবেশন করেন একুশের গান আমার ভায়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারী, আমি কি ভুলিতে পারি? এরপর শুরু হয় অনুষ্ঠানের সবচেয়ে আকর্ষণীয় পর্ব -একুশের ঐতিহ্যবাহী একুশের ফেরী। উপযুক্ত ভাব-গাম্ভীর্যের মাধ্যমে সকলে বিভিন্ন দলে দলে শহীদ মিনার বেদীতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পনের মাধ্যমে শহীদদের প্রতি তাদের শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। বিভিন্ন স্থানীয় বাংলাদেশী সংগঠন, বাংলা স্কুল, সঙ্গীত স্কুল, গানের দল, খেলার দল, বাংলাদেশী মালিকানাধীন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, বাংলাদেশীদের সমন্বয়ে গড়া বিভিন্ন দাতব্য সংগঠন, বাংলাদেশের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রীরা, অ্যারিজোনার বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কর্মরত বাংলাদেশীরা এবং বাংলাদেশসহ অন্যান্য এলাকার সংগঠনের অ্যারিজোনার প্রতিনিধিরা দলবদ্ধভাবে শ্রদ্ধাঞ্জলির মাধ্যমে শহীদ মিনার বেদী ভরিয়ে দেয় ফুলের সমারোহে। এরা হচ্ছে একুশে উদযাপন পরিষদ, বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েসশন অব ফিনিক্স, বাংলাদশ স্টুডেন্টস অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ থিয়েটার অব অ্যারিজোনা, শিকড় বাংলা স্কুল, সুর ও বাণী সঙ্গীত নিকেতন, ফোবানা, অ্যারিজোনা টাইগার্স ক্রিকেট কমিটি, বাংলাদেশী ফুটবলার্স অ্যাসোসিয়েশন অব ফিনিক্স, কোবা, বুয়েট ৮৭ ফাউন্ডেশন, ফোরাম ৮৬, এইচ এস সি ৮৩, এক্স ক্যাডেটস, এক্স ল্যাবরেটরিয়ানস, ফিনিক্সের ৬টি ক্রিকেট দল (ফিনিক্স চিতাস, চ্যান্ডলার বেঙ্গলস, লভিন ব্রঙ্কস, মেসা লায়ন্স, লাভিন বাঘা, অ্যারিজোনা জাগুয়রর্স), ব্যান্ড দল রেইন্স, এডট বাংলাদেশী এম্পলয়ীস, ইন্টেল বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়সশন, আই-মার্ট চ্যান্ডলার, হক এন্ড অ্যাসোসিয়েটস, অ্যামটেক অ্যাসোসিয়েটস, স্টাইটেল নেট এবং রিংটেল।

 

 এরপর শুরু হয় অনুষ্ঠানের অন্যান্য আয়োজন। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে শিকড় বাংলা স্কুলের ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা পরিবেশন করে আবৃতি এবং সঙ্গীত। সুর ও বাণী সঙ্গীত নিকেতনের শিক্ষার্থীরা একক এবং দলীয় সঙ্গীতে উপস্থিত সকলের মন জয় করে। আরও ছিল অ্যারিজোনার স্থানীয় শিল্পীদের সংগীত পরিবেশনা। সবার শেষে সঙ্গীত পরিবেশন করেন বাংলাদেশের আশির দশকের জনপ্রিয় শিল্পী জনাব এম. এ. শোয়েব।

অনু্ষ্ঠান প্রাঙ্গণে ছিল বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের তথ্যকেন্দ্র। এদের মধ্যে শিকড় বাংলা স্কুল, কোবা-চ্যারিটি অর্গানাইজেশন অব বাংলাদেশী অ্যারিজোনানস, বুয়েট ৮৭ ফাউন্ডেশন এবং রিংটেল অন্যতম। এছাড়াও ছিল সেনসাস ২০১০-এর একটি বুথ।

অনুষ্ঠান প্রাঙ্গণে আরও শোভা পায় ভাষা আন্দোলনের ইতিহাস ও স্থিরচিত্র নিয়ে বিভিন্ন পোস্টার, ঢাকার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের আশে পাশে পরিচিত একুশের দেয়াল-লিখন গুলির আদলে লিখিত পোস্টার। এছাড়াও ফিনিক্সের স্থানীয় চিত্র শিল্পীদের চিত্রকর্ম প্রদর্শিত হয় একটি গ্যালারীতে।

শিকড় বাংলা স্কুলের  বুথে অ্যারিজোনার দুইজন লেখকের (আব্দুর রহমান আবিদ এবং শায়লা নাহার) একুশে বই মেলায় প্রকাশিত বই বিক্রি করা হয়। এছাড়া উপস্থিত শিশু কিশোরদের নিয়ে শিকড় আয়োজন করে আমি বাংলায় আমার নাম লিখতে পারি তাদের বাংলায় নাম লেখা শেখানোর একটি উদ্যোগ। আরও ছিল শিশুদের প্লে-ডো দিয়ে শহীদ মিনারের মডেল তৈরী এবং বাংলা গল্প শোনার আসর। বাঘ, শিয়াল ইত্যাদির মুখোশ পরিধান করে অভিনয়ের মাধ্যমে শিশুদের বাংলা সাহিত্যের বিভিন্ন পরিচিত গল্প পরিবেশন করা হয়।  

শিশু কিশোরদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

ছোট বাচ্চাদের ফেস-পেইন্টিং ছিল আরেকটি উল্লেখযোগ্য আয়োজন। শিশুরা তাদের গালে, হাতে শহীদ মিনার, বাংলা অক্ষরসহ বিভিন্ন নক্সা আঁকা অনেক উপভোগ করে। 

এছাড়া আরেকটি উল্লেখযোগ্য আয়োজন ছিল বাংলা বিশারদ। বাংলা বিষয়ে বিভিন্ন প্রশ্নের মাধ্যমে দর্শকদের মধ্য থেকে খুঁজে নেয়া হয় একজন বাংলা বিশারদকে। আরও ছিল রাফেল ড্র এবং সুস্বাদু খাবার।

একুশে উদযাপন পরিষদের পক্ষে আহবায়ক জনাব মহসীউল আলম সবাইকে অমর একুশে উদযাপনকে সাফল্যমন্ডিত করার জন্য ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

 

মঞ্চে সবার শেষ আয়জন ছিল বাংলাদেশ থিয়েটার অব অ্যারিজোনার ত্রয়োদশ পরিবেশনা হাসির নাটক হোম মিনিস্টার একদিন। ব্যঙ্গ কৌতুকের মাধ্যমে বাংলাদেশের রাজনীতির চিরাচরিত চিত্রটি দর্শকের সামনে সফলভাবে উপস্থাপিত হয়েছে এই নাটিকার মাধ্যমে।   

বিভিন্ন সংগঠনের একসাথে সম্মিলিতভাবে  একুশে উদযাপন অ্যারিজোনার অখন্ড বাংলাদেশী কমিউনিটির একটি বহিপ্রকাশ। এই অনন্য  আয়োজনের মাধ্যমে নতুন প্রজন্মের কাছে অমর একুশের তাৎপর্য তুলে ধরা গেছে।

 

মন্তব্য:
m.a.shoeb   March 24, 2010

m.a.shoeb   March 24, 2010

এ সপ্তাহের জরীপ

প্রেসিডেন্ট ওবামা ঠিকমত দেশ চালা্চ্ছেন।

 
Code of Conduct | Advertisement Policy | Press Release | Hard Copy Archive
© Copyright 2001 Porshi. All rights reserved.