Home | About Us | Porshi Team | Porshi Patrons | Event Announcement | Contact Us
হোমপেজ পুরনো সংখ্যা: সূচীপত্র  প্রযুক্তি বন্ধন  ||  ৯ম বর্ষ ১২তম সংখ্যা চৈত্র ১৪১৬ •  9th  year  12th  issue  Mar - Apr  2010 পুরনো সংখ্যা
প্রযুক্তির টুকরো খবর Download PDF version
 

প্রযুক্তি বন্ধন

প্রযুক্তির টুকরো খবর

মোহাম্মদ কাওছার উদ্দীন

 

BASIS Closing.JPGশেষ হলো সফটএক্সপো ২০১০ - ১-৫ ফেব্রুয়ারী ২০১১ অনুষ্ঠিত হবে পরবর্তী সফটএক্সপো

ঢাকার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) অনুষ্ঠিত বেসিস সফটএক্সপো ২০১০ গত ১৫ ফেব্রুয়ারী শেষ হয়েছে। মেলার সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাণিজ্যমন্ত্রী লে. কর্নেল ফারুক খান (অবঃ)। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিজ্ঞান এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সচিব এ কে এম আব্দুল আউয়াল মজুমদার ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত সচিব গোলাম হুসেইন। অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন গ্রামীনফোনের পরিচালক (কারিগরি বিভাগ) তানভীর মোহাম্মদ।

প্র্রধান অতিথি তাঁর বক্তব্যে আইসিটি খাতের জন্য বরাদ্ধকৃত সরকারি ফান্ডগুলোর কথা উল্লেখ করে সেগুলোর সুষ্ঠু বন্টনের আশ্বাস প্রদান করেন। তিনি বেসিস সভাপতিকে আইসিটি খাতের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সমস্যাগুলো খুঁজে বের করার জন্য অনুরোধ করেন এবং সেগুলোর দ্রুত সমাধানের জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপের আশ্বাস দেন। পাশাপাশি স্বল্প মূল্যে সফটওয়্যার নিশ্চিত করার জন্য বেসিস সভাপতিকে অনুরোধ জানান। অনুষ্ঠানে সূচনা বক্তব্য রাখেন বেসিস কোষাধ্যক্ষ ফারহানা এ রহমান। সমাপনী অনুষ্ঠানে সফটএক্সপো ২০১১ পর্বের ওয়েবসাইটের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়। সেই সঙ্গে সফটএক্সপো ২০১১ পর্বের তারিখ নির্ধারন করা হয়। অষ্টমবারের সফটওয়্যার মেলা বেসিস সফটএক্সপো ২০১১ অনুষ্ঠিত হবে ২০১১ সালের ফেব্রুয়ারী মাসের ১ থেকে ৫ তারিখ। স্থান বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি)।

সমাপনী অনুষ্ঠানে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ জাফর ইকবালকে বেসিস আইসিটি চ্যাম্পিয়ন অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয়। তথ্যপ্রযুক্তিতে বিশেষ অবদানের জন্য বেসিস তাঁকে অ্যাওয়ার্ডটি প্রদান করে। এর আগে তরুন প্রযুক্তিবিদদের আইটি ইনোভেশন এওয়ার্ড এবং তথ্যপ্রযুক্তির সেরা ব্যবহারকারীদের আইটি ইউজ এওয়ার্ড প্রদান করা হয়। এতে সেন্টার ফর রিসার্চ অন বাংলা ল্যাঙ্গুয়েজ প্রসেসিংয়ের তৈরি কম্পিউটারে বাংলা শোনা ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের তৈরি দৃষ্টি প্রতিবন্ধিদের জন্য সহজে অক্ষর চেনা প্রকল্প আইটি ইনোভেশন এওয়ার্ডে পুরস্কৃত হয়। তথ্যপ্রযুক্তি সেরা ব্যবহারকারী হিসাবে ছয়টি প্রতিষ্ঠানকে পুরস্কৃত করা হয়। প্রতিষ্ঠানগুলো হচ্ছে- ধর্ম মন্ত্রণালয়ের হজ্ব ব্যবস্থাপনা সিস্টেম (বিজনেস অটোমেশন লিমিটেড), এপিক গার্মেন্টস ম্যানুফেকচারিং কোম্পানী লিমিটেড (সিএসএল সফটওয়্যার রিসোর্সেস লিমিটেড), নভোরটিজ বাংলাদেশ লিমিটেড (ইনফরমেশন ইঞ্জিনিয়ারস), সাউথ ইস্ট ব্যাংক ও জীবন বীমা কর্পোরেশন (লিডস কর্পোরেশন) ও সয়েল রিসোর্সেস ডেভেলপমেন্ট লিমিটেড (ই-জেনারেশন)।

মেলার প্ল্যাটিনাম স্পন্সর ছিলো গ্রামীণফোন এবং গোল্ড স্পন্সর রিভ সিস্টেম। কোঅর্গেনাইজার মিনিস্ট্রি অব সায়েন্স অ্যান্ড আইসিটি। কোস্পন্সর আইসিটি বিজনেস প্রোমোশন কাউন্সিল। স্ট্রাটেজিক পার্টনার এফবিসিসিআইআই এবং এমসিসিআই। মেলাতে ফ্রি ওয়্যারলেস ইন্টারনেট সেবা দিয়েছে বাংলালায়ন।

 

ঈশ্বরদীতে দিনব্যাপী তথ্যপ্রযুক্তি সচেতনতা বিষয়ক কার্যক্রম অনুষ্ঠিত

ICT_ISWARDI.jpgবাংলাদেশ আইসিটি জার্নালিস্ট ফোরাম (বিআইজেএফ) ও আইসিটি বিষয়ক দেশের একমাত্র অনলাইন পত্রিকা টেকজুম২৪ ডটকমের সহযোগিতায় ঈশ্বরদীর সামাজিক সংগঠন ই্য়ুথ অরগানাইজেশন ও উত্তরাঞ্চলের প্রথম অনলাইন সংবাদপত্র ঈশ্বরদী ডট কম যৌথভাবে গত ১২ ফেব্রুয়ারী উত্তরবঙ্গের প্রবেশদ্বার খ্যাত ঈশ্বরদীতে দিনব্যাপী তথ্যপ্রযুক্তি সচেতনতা বিষয়ক নানা কর্মসূচি পালন করে। দিনব্যাপী এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির (বিসিএস) সভাপতি মোস্তাফা জব্বার, বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আইসিটি জার্নালিস্ট ফোরামের (বিআইজেএফ) সভাপতি মোহাম্মদ কাওছার উদ্দীন।

অনুষ্ঠানের দিন সকাল থেকে ঈশ্বরদী মহিলা ডিগ্রী কলেজ চত্বরে শিশু কিশোরদের জন্য আয়োজন করা হয় ছবি আঁকা, সুন্দর হাতের লেখা, কবিতা আবৃত্তি ও কুইজ প্রতিযোগিতা। দ্বিতীয় পর্যায়ে কলেজ অডিটোরিয়ামে ঈশ্বরদীর বিভিন্ন স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীদের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক বিভিন্ন বিষয় এবং ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠন বিষয়ক সচেতনতামূলক কর্মশালা পচিরচালনা করেন বিসিএস সভাপতি মোস্তাফা জব্বার। অনুষ্ঠানের তৃতীয় পর্যায়ে ঈশ্বরদী পৌরসভা অডিটরিয়ামে যুগান্তর স্বজন সমাবেশের উদ্যোগে মত বিনিময় ও তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক বিষয়ক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। মতবিনিময় ও আলোচনা শেষে মোস্তাফা জব্বার ঈশ্বরদী ডটকমের উদ্বোধন করেন। এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিআইজেএফ সভাপতি মোহাম্মদ কাওছার উদ্দীন, ঈশ্বরদী ডটকমের প্রধান সম্পাদক আব্দুল হালিম, সম্পাদক ওয়াশিকুর রহমান শাহীন, কারিগরি সম্পাদক তাহমিনা আক্তার খান, বাংলাদেশ ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার ঈশ্বরদী ইউনিটের সভাপতি ওয়াহিদুর রহমান, ঈশ্বরদী প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসেম, সাপ্তাহিক ঈশ্বরদীর সম্পাদক সেলিম সরদার, স্বজন সভাপতি আফসার আলী, স্বজন সম্পাদক ওয়াজেদ বিশ্বাস প্রমূখ। বিকেলে ঈশ্বরদী মহিলা ডিগ্রী কলেজ চত্বরে শিশু কিশোর প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। ই্য়ুথ অরগানাইজেশনের সভাপতি মেহেদী হাসান বাপ্পীর সভাপতিত্বে এ পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিসিএস সভাপতি মোস্তাফা জব্বার, বিআইজেএফ সভাপতি মোহাম্মদ কাওছার উদ্দীন, ই্য়ুথ অরগানাইজেশনের প্রধান উপদেষ্টা মাহাজাবিন শিরিন পিয়া, ঈশ্বরদী প্রেসক্লাবের সভাপতি আলাউদ্দিন আহমেদ, সহ-সভাপতি প্রভাষক হাসানুজ্জামন, শহিদুল হক শাহিন, প্রভাষক ইসমাইল, তানিয়া আক্তার বিথি প্রমূখ। দিনের শেষে ঈশ্বরদী প্রেস ক্লাবে ঈশ্বরদী ডটকমের সৌজন্যে সংবাদিক ও ঈশ্বরদীর সুধীজনদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে সাংবাদিকরা কিভাবে আরো সহজে তাদের দৈনন্দিন কার্যক্রম চালাতে সে বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয়।

বাংলাদেশে কমিউনিটি রেডিওর বর্তমান অবস্থা নিয়ে কর্মশালা অনুষ্ঠিত

গত ১৩ ফেব্রুয়ারী রাজধানীর এলজিইডি অডিটোরিয়ামে বাংলাদেশে কমিউনিটি রেডিওর বর্তমান অবস্থা বিষয়ে এক কর্মশালার আয়োজন করা হয়। ইউনিসেফের সহায়তায় এই কর্মশালাটি আয়োজন করে বাংলাদেশ এনজিওস নেটওয়ার্ক ফর রেডি এন্ড কমিউনিকেশন (বিএনএনআরসি) এবং সেন্টার ফর ই-পার্লামেন্ট রিসার্চ। সেন্টার ফর ই-পার্লামেন্ট রিসার্চের চেয়ারম্যান সংসদ সদস্য ড. আকরাম হোসেন চৌধুরীর সঞ্চালনায় এ কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন তথ্য সচিব ড. কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী, বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন তথ্য মন্ত্রনালয়ের যুগ্ম সচিব আমিনুল ইসলাম। কর্মশালায় কমিউনিটি রেডিও বিষয়ক দুটি প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন যথাক্রমে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক এস এম শামীম রেজা এবং ইউনিসেফ বাংলাদেশের কমিউনিকেশন ফর ডেভেলপমেন্ট স্পেশালিস্ট প্যাট্রিসিয়া ডি সুজা। কর্মশালায় বক্তারা যত দ্রুত সম্ভব কিছু কমিউনিটি রেডিও যেন তাদের কার্যক্রম শুরু করতে সে বিষয়ে উদ্যোগ নেয়ার জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানান। কর্মশালায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সাবেক তথ্য সচিব ও বিটিআরসি চেয়ারম্যান সৈয়দ মার্গুব মোর্শেদ ও গণমাধ্যম বক্তা মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর।

এইম ইন লাইফ ও বিজি ইনফোটেকের মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষর

গত ১৩ ফেব্রুয়ারী ভারতের স্বনামধন্য সফটওয়্যার নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বিজি ইনফোটেক (প্রাঃ) লিমিটেডের সাথে বাংলাদেশের সফটওয়্যার নির্মাতা ও তথ্যপ্রযুক্তি পরিষেবা প্রতিষ্ঠান এইম ইন লাইফ এর সফটওয়ার নির্মাণ, বিপনন ও প্রশিক্ষণ বিষয়ক এক চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। এইম ইন লাইফের প্রেসিডেন্ট ও সিইও এম শোয়েব চৌধুরী এবং বিজি ইনফোটেক (প্রাঃ) লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক দীনেশ কুমার গুপ্তা নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন। চুক্তির আওতায় এইম ইন লাইফ, বিজি ইনফোটেক (প্রাঃ) লিমিটেডের বাংলাদেশের কান্ট্রি পার্টনার হিসেবে কাজ করবে।

অনুষ্ঠানে দীনেশ কুমার গুপ্তা জানান, বিজি একাউন্টিং সফটওয়্যারটির মাধ্যমে বাংলাদেশের ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলোকে অত্যাধুনিক সফটওয়্যার সেবা দেয়া সম্ভব হবে। তিনি বলেন, আমরা আপনাদেরকে নিশ্চয়তা দিতে পারি, বাংলাদেশের যত একাউন্টিং সফটওয়্যার আছে সবার থেকে প্রতিযোগিতামূলক মূল্যে কোয়ালিটি সফটওয়্যার আমরা দিতে পারবো। তিনি জানান, বিভিন্ন দেশের প্রায় ২০ লাখ গ্রাহক বিজি একাউন্টিং সফটওয়্যার ব্যবহার করে। তিনি আশা প্রকাশ করেন তাদের এই উদ্যোগ সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ কর্মসূচিকে এগিয়ে নিতে সহায়তা করবে। তথ্যপ্রযুক্তি জ্ঞান সম্পন্ন লোক ছাড়াও অন্যরা মাত্র এক দিনের প্রশিক্ষণের মাধ্যমে সফটওয়্যারটি ব্যবহার করতে পারবে বলে তিনি জানান।

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সরকারের সাবেক তথ্য সচিব ও বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন রেগুলেটরী কমিশনের (বিটিআরসি) প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান সৈয়দ মার্গুব মোর্শেদ ও এফবিসিসিআই এর পরিচালক শাফকাত হায়দার।

ডাটা সমন্বয়ে ওরাকল শীর্ষে

ডাটা সমন্বয়ের ক্ষেত্রে ওরাকলের সফটওয়্যার শীর্ষস্থানে রয়েছে বলে যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃস্থানীয় প্রযুক্তি বিষয়ক বাজার গবেষণা প্রতিষ্ঠান গার্টনার সম্প্রতি প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে। গার্টনারের ম্যাজিক কোয়াড্রেন্ট ফর ডাটা ইন্টিগ্রেশন টুলস শীর্ষক প্রতিবেদনে এ তথ্য প্রকাশিত হয়েছে।

গার্টনারের মতে, ডাটা সমন্বয়ের ক্ষেত্রে নেতৃত্বদানকারী কোম্পানিগুলোই প্রকৃত অর্থে এগিয়ে রয়েছে। শীর্ষস্থানীয় কোম্পানিগুলো ডাটা ইন্টিগ্রেশন টুল ব্যবহার করে উদ্ভূত নতুন নতুন সমস্যার সমাধান করছে। যার মাধ্যমে প্রোডাক্টে যোগ হচ্ছে নতুন মাত্রা। যার ফলে বাজারে আধিপত্য বিস্তার করে বাজারের গতিপ্রকৃতি নিয়ন্ত্রণ করেছে সফটওয়্যার কোম্পানিগুলো। আর এক্ষেত্রে ওরাকল ডাটা সমন্বয়ে সবার চেয়ে এগিয়ে রয়েছে। গার্টনারের রিপোর্টে বলা হয়েছে ডাটা সমন্বয়ের ক্ষেত্রে গ্রাহকের চাহিদা মেটাতে ওরাকল ক্রমাগত উন্নততর সেবা দিয়ে যাচ্ছে।

ওরাকল ডাটা ইন্টিগ্রেশন ডাটা ব্যবস্থাপনায় সার্ভিস ওরিয়েন্টেড আর্কিটেকচার (এস.ও.এ), বিজনেস ইন্টেলিজেন্স (বি,আই) এবং ডাটা ওয়্যারহাউজভিত্তিক এন্টারপ্রাইজগুলোকে বিশেষভাবে সহায়তা করে থাকে। এটি উপাত্ত সমন্বয়ের সকল উপাদানকে একত্রিত করে উপাত্তের রূপান্তর এবং এর মান ও কার্যকারিতা বৃদ্ধি করে সার্বিকভাবে উপাত্ত ব্যবস্থাপনাকে নিয়ন্ত্রণ করে থাকে। এর মাধ্যমে বিক্ষিপ্ত উপাত্তগুলোকে একত্রিত করে সঠিক সময়ে নির্ভুল তথ্য সরবরাহ নিশ্চিত করা সম্ভব হয়।

ওরাকল প্রোডাক্ট ডেভলপমেন্ট এর ভাইস প্রেসিডেন্ট শচীন চাওলা এ প্রসঙ্গে বলেন, বর্তমানে ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলোর কাছে সহজতর ও নমনীয় উপাত্ত সমন্বিত প্রযুক্তির সলিউশন্স এর ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। ওরাকল সফটওয়্যার ব্যবহারের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের অসংখ্য বিক্ষিপ্ত উপাত্ত থেকে প্রয়োজনীয় সঠিক উপাত্তটি সময়মত পেতে সাহায্য করে থাকে। সমন্বিত ডাটার ক্ষেত্রে ওরাকলের শীর্ষ অবস্থান গ্রাহকসেবার প্রতি ওরাকলের দায়বদ্ধতাকে আরো বেশি জোরালো করে তোলে। ওরাকল টেকনোলজি ব্যবহার করার ফলে গ্রাহকগণ সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ ও তাদের কর্মপরিধিকে আরো সম্প্রসারিত করতে পারবেন।

 

মন্তব্য:
এ সপ্তাহের জরীপ

প্রেসিডেন্ট ওবামা ঠিকমত দেশ চালা্চ্ছেন।

 
Code of Conduct | Advertisement Policy | Press Release | Hard Copy Archive
© Copyright 2001 Porshi. All rights reserved.