Home | About Us | Porshi Team | Porshi Patrons | Event Announcement | Contact Us
হোমপেজ পুরনো সংখ্যা: সূচীপত্র  কৌতুক  ||  ৯ম বর্ষ ১২তম সংখ্যা চৈত্র ১৪১৬ •  9th  year  12th  issue  Mar - Apr  2010 পুরনো সংখ্যা
কৌতুক Download PDF version
 

কৌতুক

 

১.

অনেকেই তো অনেক কিছু নিয়ে গবেষণা করেতাই এক ভদ্রলোক ভাবলেন তিনিও একটা কিছু নিয়ে গবেষণা করবেন। বিষয় কি হবে তাই নিয়ে ভাবতে ভাবতে বেশ সময় কেটে গেল। অবশেষে তিনি তেলাপোকা নিয়ে গবেষণা করবেন ঠিক করলেন। একটা তেলাপোকা ধরলেন তিনি। তারপর তাকে কয়েকদিন আদর যত্ন করলেন এবং কিছু প্রশিক্ষণ দিলেন। দুটো শব্দ তেলাপোকাকে শেখানো হলো। একটা হলো- যা। আর একটা হলো- থামো। যখন তেলাপোকার শব্দদু'টি ভাল করে শেখা শেষ হলো এবং সে নির্দেশ পালন করতে সক্ষম হলো,তখন ভদ্রলোক একটা দিন ঠিক করে তার গবেষণা শুরু করলেন। প্রথমে তিনি তেলাপোকাটার একটা পা কেটে দিয়ে বললেন- ‌'যাও'। অমনি তেলাপোকাটা দৌড় দিল। তিনি বললেন- 'থামো'। তেলাপোকাটা থেমে গেল। ভদ্রলোক হিসেব করলেন যে চার পায়ে দৌড়ানোর চেয়ে তিন পায়ে দৌড়াতে ১ মিনিট সময় বেশী নিল তেলাপোকাটা। পরদিন ভদ্রলোক আর একটা পা কেটে দিলেন তেলাপোকাটার। তারপর বললন, 'যাও'। তেলাপোকাটা দৌড় দিল, তবে পুরো দৌড়াতে পারলোনা। ভদ্রলোক বললেন- 'থামো'। তেলাপোকাটা থেমে গেল। ভদ্রলোক নোট করলেন- তেলাপোকার দুই পা কেটে দিলে একই দূরত্বে পৌছাতে তিন মিনিট সময় বেশী লাগে। পরের দিন তিনি আর একটা পা কেটে দিলেন তেলাপোকাটার এবং বললন- 'যাও'। তেলাপোকাটা খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে কোন ভাবে চলতে শুরু করলো। খানিক পর ভদ্রলোক বললো- 'থামো'। তেলাপোকাটা থেমে গেল। ভদ্রলোক নোট করলেন-তেলাপোকার তিন পা কেটে দিলে একই দূরত্বে পৌঁছাতে ৭ মিনিট সময় বেশী লাগে। পরের দিন,গবেষণার শেষ দিন। ভদ্রলোক তেলাপোকার চার নম্বর পাও কেটে দিয়ে বললেন- 'যাও'। তেলাপোকাটা নড়লোনা। তিনি আবার বললেন,- 'যাও'। তেলাপোকাটা তবুও নড়লোনা। ভদ্রলোক তখন নোট করলেন, তেলাপোকার চার পা কেটে দিলে আর কানে শোনে না।
২.

তাদের ৩০তম বিবাহ-বার্ষিকী নির্ভুল এবং খুব সুন্দর করে করতে হবে, তাই ভদ্রলোক বার্ষিকীর এক দিন আগেই রওনা হয়ে গেলেন সেই হোটেলে যেখানে তারা তিরিশ বছর আগে প্রথম মধুচন্দ্রিমা করেছিলন। হোটেলে পৌঁছেই তিনি সব ব্যবস্থা ঠিক আছে কিনা,ঘরটা ঠিক মত সাজানো হয়েছে কিনা, যথেষ্ট ফুল আছে কিনা ইত্যাদি দেখে শুনে স্ত্রীর কাছে একটা ই-মেইল করলেন। তাড়াহুড়োতে ই-মেইলের বানান ভুল হওয়ায় সেটা চলে গেল সদ্য বিধব হওয়া এক ভদ্রমহিলার কাছে। পরের দিন সকালে অফিসে যাওয়ার আগে বিধবা ভদ্রমহিলার ছেলে মার সাথে দেখা করতে তার ঘরে গিয়ে দেখে মা কমপিউটার-এর সামনে চেয়ারে বসে। মায়ের কাছে গিয়ে সে বুঝতে পারলো মা মারা গেছেন।

কমপিউটারের পর্দায় চোখ পড়লো ছেলেটির। তাতে লেখা- প্রিয়তমা,আমি এখানে ঠিক মত পৌঁছে গেছি এবং সবকিছু ঠিকঠাক। এখন কেবল তোমার আগমনের অপেক্ষা আগামী কাল। আশা করি তোমার এ আসা আমার মতই ঝামেলা বিহীন হবে। পুনশ্চঃ এখানে খুব গরম।

ওয়ালিউল ইসলাম,

রোজভিল, ক্যালিফোর্নিয়া।

 

মন্তব্য:
এ সপ্তাহের জরীপ

প্রেসিডেন্ট ওবামা ঠিকমত দেশ চালা্চ্ছেন।

 
Code of Conduct | Advertisement Policy | Press Release | Hard Copy Archive
© Copyright 2001 Porshi. All rights reserved.