Home | About Us | Porshi Team | Porshi Patrons | Event Announcement | Contact Us
হোমপেজ পুরনো সংখ্যা: সূচীপত্র  মূল রচনাবলীঃ  ||  ৯ম বর্ষ ৮ম সংখ্যা অগ্রহায়ণ ১৪১৬ •  9th  year  8th  issue  Nov-Dec  2009 পুরনো সংখ্যা
আমেরিকাতে প্রথম মসজিদ Download PDF version
 

প্রবাসে মসজিদ

 

আমেরিকাতে প্রথম মসজিদ

মুহিবুর রহমান মুরশিদুল হক

মুসলমানদের প্রার্থনালয় ও ধর্মশিক্ষার কেন্দ্রবিন্দু হচ্ছে মসজিদ। যুগে যুগে ইসলামের আলো ছড়িয়ে মানুষকে ইসলামের আদর্শে উদ্বুদ্ধ করেছে মসজিদ। আমাদের প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) মসজিদকে শুধু নামাজ পড়ার জন্যই ব্যবহার করেননি। মসজিদ ছিল সমাজ সংস্কার ও রাষ্ট্র পরিচালনার প্রধান স্থান।

ইসলামের ইতিহাসে প্রথম মসজিদ স্থাপিত হয়েছিল মদীনাতে ৬২২ খৃষ্টাব্দে। আমেরিকাতে প্রথম মসজিদ কোনটি এবং কোথায় স্থাপিত হয়েছিল তা নিয়ে যথেষ্ট মতভেদ আছে। অনেকের মতে আমেরিকাতে প্রথম পূর্নাঙ্গ মসজিদ স্থাপিত হয়েছেল ১৯৩৪ সালে আইওয়ার (Iowa) সিডারেপিডস্ শহরে যা ছিল সাধার চতুষ্কো আকারের কিন্তু প্রধান দরজার উপরে একটি গম্বুজ ছিল।

উনবিংশ শতাব্দীর শেষের দিকে ও বিংশ শতাব্দীর প্রথম দিকে যখন আমেরিকাতে অভিবাসনের জোয়ার চলছিল তখন লেবানন ও সিরিয়ার মধ্যে অবস্থিত বাকা উপত্যকা থেকে অনেক মুসলমান ভাগ্যের অন্বেষণে যুক্তরাষ্ট্রে চলে আসেন। তাদের অনেকেই ইষ্ট কোষ্টের শহরগুলোতে থেকে গেলেও কিছু মুসলমান ১৮৯৫ সালে আইওয়ার সিডার রেপিডস্ শহরে আস্তানা গাড়ে। ধীরে ধীরে তাদের সংখ্যা বাড়তে থাকে এবং বিভিন্ন ধর্মীয় অনুষ্ঠানের কলেবর বৃদ্ধি পেতে থাকে। বিংশ শতাব্দীর দ্বিতীয় ও তৃতীয় দশকে তাদের বিভিন্ন ধর্মীয় অনুষ্ঠানের জন্য বড় বড় হল ঘর ভাড়া নিতে হচ্ছিল। এটা ক্রমশই স্পষ্ট হয়ে উঠে যে বিভিন্ন ধর্মীয় অনুষ্ঠান ও সবাই একসঙ্গেঁ প্রার্থনা করার জন্য একটি আলাদা স্থান প্রয়োজন। এই অনুভূতি থেকেই অনেক ত্যাগ ও তিতিক্ষার বিনিময়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম মসজিদ স্থাপিত হয় আইওয়ার সিডার রেপিডস্ শহরে। এই মসজিদকে Americas mother mosque হিসাবে অভিহিত করা হয়।

কেউ কেউ মনে করেন আমেরিকার প্রথম মসজিদটি স্থাপিত হয়েছিল নর্থ ডাকোটাতে ১৯২৯ কিংবা ১৯৩০ সালে। এখানে একটি ব্যাপার লক্ষ্যণীয় যে যদিও আমেরিকার সর্বাধিক মুসলমান বাস করেন নিউইয়র্ক ও ক্যালিফোর্নিয়ায় কিন্তু প্রথম মসজিদ স্থাপিত হয়েছিল যে শহরে সেখানে মুসলমানদের সংখ্যা ছিল খুবই কম। এই মসজি স্থাপনের পেছনে নর্থ ডাকোটাতে অবস্থানরত লেবানীজ মুসলমানরা প্রধান ভূমিকা পালন করেন। এই মসজি ছিল সাধার কাঠের তৈরী এবং উচ্চতা ছিল ১.২৫ মিটার।

বিংশ শতাব্দীর প্রথমদিকে অর্থের অন্বেষণে লেবানীজ মুসলমানরা নর্থ ডাকোটাতে আসেন। প্রথমে তারা ভেবেছিলেন আমেরিকা থেকে অর্থ সম্পদ যোগাড় করে তারা আবার লেবাননে ফেরত যাবেন কিন্তু তা আর হয়ে উঠেনি। লেবানীজ মুসলমানরা যখন স্থির করেন যে তারা নর্থ ডাকোটাতে বসবাস করবেন তখন তারা একটি মসজিদের প্রয়োজনীয়তা অনুভব করেন। তারই ফলশ্রুতিতেই নর্থ ডাকোটাতে প্রথম মসজি স্থাপিত হয়। নর্থ ডাকোটাতে যে কয়জন মুসলমান এখনও জীবিত আছেন তাদের মধ্যে হাসান আবল্লাহ একজন যার বয়স এখন ৮০ বছর। মসজিদটির স্মৃতিচার করতে গিয়ে হাসান আবদাল্লাহ বলেন যে নর্থ ডাকোটাতে ঝড়ো আবহাওয়া থাকতো তাই বেসমেন্টে একটি বড় ঘর তৈরী করা হয়, মাটির উপরে ছিল মাত্র ১.২৫ মিটার।

সবাই মিলে যখন এক সঙ্গে বেসমেন্টে অনেক বড় একটা ঘরে নামাজ পড়তেন তখন হান আবদাল্লাহ ছিলেন একটি বালক। মহিলারাও পিছনে নামাজে যোগ দিতেন। তিনি বলেন যে সেই সময় কারো গাড়ী ছিল না, সবাই ঘোড়া টানা গাড়ীতে চড়ে মসজিদে আসতেন। ১৯৩০ সালের একটি ঘটনা এখনও হাসান আব্দাল্লাহর মনে গভীর দাগ কেটে আছে। নর্থ ডাকোটার এই মসজিদে সবাই বৃষ্টির জন্য একবার নামাজ পড়েন এবং মসজিদ থেকে বের হয়ে বাসায় পৌছানোর আগেই মুষলধারে বৃষ্টি শুরু হয়ে যায়। সত্যিই বিস্ময়কর ছিল সেই ঘটনা।

 

______

ঢাকা নিবাসী ড: মুহিবুর রহমান ঢাকা মেডিকেল কলেজে প্রফেসর ও কিডনি বিভাগের প্রধান হিসাবে কর্মরত। ক্যালিফোর্নিয়াতে ভ্রমণকালীন সময়ে তিনি প্রবন্ধটি লিখেছেন।

ক্যালিফোর্নিয়ার ডেভিস নিবাসী ড: মুরশিদুল হক মৃত্তিকা বিজ্ঞানী হিসাবে California Department of Conservationএ কর্মরত।

নভেম্বর ৬, ২০০৯

 

উপাধি আধা কৃষ্ণাঙ্গ জিন ছাড়া হয়তো আর বেশী কিছুই পান নি তিনি

তাঁর বাবা ছিলেন কেনিয়ার লুও উপজাতির বারাক হুসেইন ওবামা সিনিয়র এবং তাঁর মা ছিলেন মার্কিন শ্বেতাঙ্গী অ্যান ডানহাম ওবামার বাবা মার পরিচয় হয় এক রুশ ভাষা শিক্ষা ক্লাসে, ১৯৬০ সালে বারাক হুসেইন ওবামা সিনিয়ররের  সেটি ছিল দ্বিতীয় বিয়ে  কেনিয়ায় গোত্র প্রথামতে, তাঁর প্রথম বিয়েটি হয়েছিলো ১৮ বছর বয়সে ২৩ বছর বয়সে উনি গর্ভবতী প্রথম স্ত্রী শিশু সন্তানকে ফেলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের স্কলারশীপে হাওয়াই বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন ততোদিনে তিনি ইসলাম ধর্ম ত্যাগ করেছেন তাই দুবছরের মাথায় ১৯৬১ সালের ২রা ফেব্রুয়ারী ধর্মের প্রতি বিশ্বাসহীন অস্টাদশী অ্যান ডানহামকে বিয়ে করতে তেমন সমস্যা হয়নি

   

বারাক  ওবামা  জুনিয়র  এর জন্ম ১৯৬১ সালের ৪ই আগষ্ট  সেই সময় ওবামার বাবা  প্রথম বিয়ের কথা  তাঁর মায়ের কাছ থেকে গোপন রেখেছিলেন  ওবামার মা সন্তান পালনে পড়াশুনা ছেড়ে দেন এবং বাবা  তাঁর পড়াশুনা চালিয়ে যেতে থাকেন ১৯৬২ সালের জুন মাসে  তাঁর পিতা হাওয়াই ইউনিভার্সিটি থেকে গ্র্যাজুয়েট ডিগ্রি লাভ করেন ১৯৬৪ সালের জানুয়ারি মাসে অ্যান ডানহ্যামের সঙ্গে  ওবামা সিনিয়রের  ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়

 

পরে ওবামা সিনিয়র হার্ভাড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স ডিগ্রি লাভ করেন ১৯৬৫ সালে তিনি রুথ নাইডস্যান্ড নামের এক শিক্ষিকাকে সাথে নিয়ে কেনিয়া ফেরত চলে যান, যিনি পরবর্তীতে ওবামা সিনিয়রের ৩য় স্ত্রী হন ওবামার সৎভাই মার্ক দেসান্ডজোর এক ইন্টারভিউতে দেয়া ভাষ্য অনুযায়ী, ‘তাদের বাবা মা (রুথ নাইডস্যান্ড)-কে ও তাদেরকে নিয়মিত মারধর করতেন রুথ পরে দুর্ব্যবহারের কারণে ওবামার বাবাকে ডিভোর্স করেন

বারাক হুসেইন ওবামা সিনিয়র ছিলেন  

মন্তব্য:
engr ilahi   December 16, 2009
i want to kmow more
এ সপ্তাহের জরীপ

প্রেসিডেন্ট ওবামা ঠিকমত দেশ চালা্চ্ছেন।

 
Code of Conduct | Advertisement Policy | Press Release | Hard Copy Archive
© Copyright 2001 Porshi. All rights reserved.