Home | About Us | Porshi Team | Porshi Patrons | Event Announcement | Contact Us
হোমপেজ পুরনো সংখ্যা: সূচীপত্র  সাম্প্রতিক  ||  ৯ম বর্ষ ৬ষ্ঠ সংখ্যা আশ্বিন ১৪১৬ •  9th  year  6th  issue  Sept-Oct  2009 পুরনো সংখ্যা
পুরাতন ভুলে, নতুন সরকার Download PDF version
 

সাম্প্রতিক

পুরাতন ভুলে, নতুন সরকার

 

শুভ কিবরিয়া

 

            বাংলাদেশের বর্তমান সরকারের বয়স এখনো এক বছর হয়নিবছরের কাছাকাছি যেতে তাদের এখনো বেশ কমাস বাকিসেই হিসেবে এই সরকারকে আমরা নতুন সরকারই বলতে পারিসরকার নতুন, কিন্তু তার কাছে চাওয়াগুলো বেশ পুরাতনজনগণ গত অর্ধ দশক ধরে দম বন্ধ করা এক শাসনে থেকেছেতার চাওয়া ছিল এই দমবদ্ধ করা শাসন থেকে সে মুক্তি পাবেক্রসফায়ার এর নৈমিত্তিক আয়োজন, বিচার বহির্ভূত হত্যাকান্ডের শাসন থাকবে নাকালোবাজারি আর বাজার সিন্ডিকেটের অত্যাচার তাকে নাকাল করবে নারাতে নিশ্চিন্তে সে ঘুমাতে পারবেসরকার চালাবে যারা প্রত্যক্ষ ও অপ্রত্যক্ষভাবে তারা শাসক হয়ে উঠবে নাসেবা না হোক, যন্ত্রণার কারণ যেনো না হয়ে উঠে শাসক শ্রেণীজনগণ সেই আকাংক্ষায় ভর করেছে, সরকারের কাছে

     বহু বছরের বিতর্ক আছে দেশের খনিজ সম্পদ নিয়েআচানক, অজানা কারণে রপ্তানির বিশেষ বিধান রেখে এই খনিজ সম্পদকে অন্যের হাতে তুলে দেবে না সেসরকার দুর্নীতি নিয়ে অনেক কথা বলবে নাবরং দুর্নীতির বিরুদ্ধে সত্যিকার কাজ করবেনিজেরা দুর্নীতি করবে নাঅন্যকে দুর্নীতি করতে আইন সংগতভাবে বাধা দেবেপ্রয়োজনে শিক্ষার ব্যবস্থাও করবে

২.

     এ রকম হাজারো প্রত্যাশা ছিলসরকার নিজেও তা আরও বাড়িয়েছেবলা নেই কওয়া নেই শেখ হাসিনা নিজে থেকেই বলে বসলেন, সংসদে ডেপুটি স্পিকার নেয়া হবে বিরোধী দল থেকেসংসদে বিরোধী দলকে অধিকতর মর্যাদা দেয়া হবেবাজার মানুষের ওপর অত্যাচার করবে নাদ্রব্যমূল্য মানুষের ক্রয়সীমা অতিক্রম করবে নাক্ষমতায় গেলে তার দল জনগণের সেবা করবেশাসন নয় সেবার প্রকৃষ্ট উদাহরণ হবে তার সরকারজনগণের সম্পদ জনগণের মালিকানায় থাকবেতার কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠিত হবেযুদ্ধাপরাধীদের বিচার হবেবঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার হবেজেলখানা হত্যার ন্যায়সঙ্গত বিচার হবেটেন্ডার-সন্ত্রাস দমন করা হবেদশ ট্রাক অস্ত্র মামলার বিচার হবেবিচার বহির্ভূত হত্যাকান্ড বন্ধ হবেআইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত হবেনদী দখল দূষণ বন্ধ হবেসর্বত্র দলীয়করণ বন্ধ করা হবে

৩.

     অতিকথনের জন্য শেখ হাসিনার দুর্নাম আছেঅতিকথন দলের মধ্যেও তাকে নানাভাবে সমালোচিত করেছেতবুও এবার শেখ হাসিনার বেশি কথায় মানুষ আস্থা রেখেছেবিশেষত তরুণ সমাজবিশেষ করে যারা প্রথমবারের মতো ভোটার হয়েছেডিজিটাল বাংলাদেশকথাটা তাদের মনে ধরেছেযুদ্ধাপরাধীদের বিচার করা হবেএই প্রত্যয়ী উচ্চারণকে তারা খুবই সত্য বলে ধরে নিয়েছেতারা ভেবেছে, শেখ হাসিনা অনেকবার রাজনীতির পরীক্ষা দিয়েছেনঅনেকবার প্রাণনাশের সম্মুখে পাড়ছেনঅনেক রাজনৈতিক বিপত্তি তার গেছেবিশেষত ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার মতো বড় বিপদ থেকে তিনি বেঁচেছেনঅন্যদিকে মাইনাস টু থিওরির ষড়যন্ত্র থেকেও রক্ষা পেয়েছেনজনগণই তাঁকে বাঁচিয়েছেকাজই তার কথায় বিশ্বাস না রাখার তো কারণ নেইতাই জনগণ অনেকটা মরিয়া হয়েই শেখ হাসিনার ওপর ভোটের আস্থা চাপিয়ে দিয়েছেএমন নিরঙ্কুশ বিজয় তাকে দিয়েছে, যাতে তার কাজ করতে অসুবিধা না হয়যেকোনো জনকল্যাণকর কাজ করতে যদি আইনও সংশোধন করতে হয় তবে যেনো অন্য দলের দারস্থ হতে না হয়দুই-তৃতীয়াংশ নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা তাকে পাইয়ে দিয়েছেজনগণের কাজ শেষএবার শেখ হাসিনার পালা

৪.

     ঢাকার শহরতলী এলাকাএক বিধবা কোনো রকমে আঁকড়ে আছেন তার সবেধন নিলমনি আবাসটি নিয়েদ্বিতল বাসটিই তার সম্বলএটি ভাড়া দিয়েই চলে তারথাকেন এই বাসাটির এক তলায়হঠাৎ তার জীবনে নতুন বিপত্তি এলোবাসাটির ওপর নজর পড়ল এক ডেভেলাপারেরচলতে লাগল নানান ষড়যন্ত্রভাড়াটিয়াদের মধ্যে একজন যোগ দিল সেই দলেবিধবা ভদ্রমহিলা উচ্ছেদ হলেন নিজ বাসা থেকেইঅনেক কাকুতি মিনতিউপায় নেইশেষমেষ নিজের বাসাই হতাছাড়াতার তখন শেখ হাসিনার কথা মনে পড়লমনে পড়ল ভোটের আগের কথাকিন্তু শেখ হাসিনাকে তিনি পাবেন কইহাতের কাছে পেলেন, ছাত্রলীগের এক নেতাকেশরণাপন্ন হলেন তারইহাত-পা ছড়িয়ে পুত্রবৎ এই নেতাকেই খুলে বললেন সবআশ্বাসও পেলেনদুদিন পর সেই নেতাই তার কাছে দাবি করলেন পাঁচ লাখ টাকাএই টাকা পেলে তিনি সমস্যার নিস্কণ্টক সমাধান করে দেবেনভদ্র মহিলা তো আকাশ থেকে পড়লেনরাগে দুঃখে শোকে ক্ষুব্ধতায় তিনি ক্ষিপ্তও হলেনতারপর একদিন সময় করে এলাকার নতুন সংসদসদস্যের কাছে হাজির হলেনসরকারের খুব ক্ষমতাশালী এই সংসদ সদস্য, গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রী হবেন বলেও শোনা যাচ্ছেপ্রাথমিক আলাপ সংসদ সদস্যকে ভালো লাগল ভদ্র মহিলারঅকুল পাথারে তাকেই ভরসা মনে হলতিনি যে এর আগে ছাত্রলীদের নেতার শরণাপন্ন হয়েছিলের সেই অভিজ্ঞতার কথা আর তুললেন নাবরং তার দুঃখের কথাই বললেনসংসদ সদস্য গভীর মনোযোগের সঙ্গে কথা শুনলেনদ্রুত এই সমস্যার তিনি সমাধান করবেন এই আশ্বাসও দিলেন

     দিন পাঁচেকের মধ্যে যুবলীগের এক স্থানীয় নেতা এলেন তার কাছেপুরো ঘটনা শুনলেনসপ্তাহখানেক পরে এসে সব সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে এই প্রতিশ্রুতি দিলেনইতোমধ্যে এলাকার সংসদ সদস্য মন্ত্রীর দায়িত্ব পেয়েছেন

     ভদ্র মহিলা খুব ভরসা পেলেনহয়ত এবার তার কাজ হবেদিন দশেক পরে যুবলীগের সেই নেতা এলোএ কথা সে কথার পর সরাসরি বলেই ফেললো লাখ দশেক এর কম এই সমস্যার সমাধান হবে নাভদ্র মহিলা একটু অবাক হলেনবিস্মিত হয়েই জিজ্ঞাসা করলেন টাকা কেনো? এর আগে ছাত্রলীগ চাইলো পাঁচ লাখ, তুমি চাইছো দশ! নেতা অনেকটা স্মার্টভঙ্গীতে উত্তর দিল, খালাম্মা মন্ত্রীর দপ্তর ঘুরে এসেছেন তো, তাই রেট ডবল হয়ে গেছে!! ভদ্র মহিলা আর কথা বাড়ালেন নাবুঝলেন সবতার খুব মনে পড়তে লাগল এলাকার ঐ সংসদ সদস্য, সম্প্রতি মন্ত্রী হওয়া মানুষটির মুখতার কথাআহারে, মানুষ কেনো এমন হয়? কি সুন্দর কথা বললেন তিনিকত আশা আর ভরসা করেছিলেন তার কথায়আর তিনিই চাঁদা চাইছেন তার লোক মারফত! নাকি, তার লোকেরা যে এসব অপকর্ম করছে তা তিনি জানেন না! এত স্পষ্ট ভাষায় চাঁদা চাইবার কথা জানবেনই না কেন তিনি!

এসব নানান কথা মনে এলো তারএবং শেষমেশ শেখ হাসিনার প্রতিশ্রুতির কথা । ... সন্ত্রাস থাকবে না, চাঁদাবাজি থাকবে না...দীর্ঘশ্বাস ছাড়লেন বিধবাদু হাত তুলে বললেন, খোদা ন্যায় বিচার তুমিই কোরসরকার, মন্ত্রী, এমপি, যুবলীগ, ছাত্রলীগের বিচার তো দেখলাম!

৫.

     ঘটনাটির মধ্যে কোনো নাটকীয়তা নেইসোজা সত্য ঘটনাশেখ হাসিনার নতুন সরকারের শাসনামলেরই ঘটনাএক রক্তি ভেজাল নেই এই গপ্পে

     কিন্তু এ রকম কাহিনী তো মানুষ শুনতে চায়নিমানুষ চেয়েছে স্বস্তিশান্তিনিরূপদ্রব শাসন

     কিন্তু বাস্তবে ঘটছে কি?

     দ্রব্যমূল্য কমছেই নাখোদ রমজানে অর্থমন্ত্রী, বাণিজ্যমন্ত্রী ব্যর্থতার কথা স্বীকার করেছেনব্যবসায়ী সিন্ডিকেট আপাতত বিজয়ীপরাজিত হয়েছে সরকার

     রাস্তাঘাটে পুলিশ এবং আওয়ামী চাঁদাবাজিরাই সফলপুরো ব্যর্থ সরকারতাই মফস্বল জেলা শহর থেকে ঢাকায় একটি পণ্যবাহী ট্রাক আসতে হাজার হাজার টাকা চাঁদা গুণতে হচ্ছেসরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী (আপাতত যিনি শীত নিদ্রায়), স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী (যিনি মুখর), কথা বললেও চাঁদাবাজি ঠেকানোর দায়িত্ব পড়েছে নৌপরিবহণ মন্ত্রীর ওপরএকদা পরিবহণ শ্রমিক নেতা শাহজাহান খান হয়ত খুশি এই দায়িত্ব পাওয়ায়, কিন্তু মানুষের কোনো উপকার হয়নিযাহা বাহান্ন তাহাই তিপ্পান্নফলে বাজারে একবার বেগুনের দাম বাড়ে তো আরেকবার বাড়ে কাঁচা মরিচের দামসরকার অসহায়শেষমেশ দোষ পড়ে মিডিয়ার ঘাড়ে

৬.

     কিন্তু নতুন সরকারের এই নাকানিচুবানি অবস্থা কেনো? কেনো সরকারের কাজ কর্ম্ম মানুষকে স্বস্তি দিতে পারছে নাএর বড় কারণ ইতিহাসইতিহাসের শিক্ষা হচ্ছে সরকারে গেলে রাজনীতিবিদরা ইতিহাস থেকে শিক্ষা নিতে চান নাশেখ হাসিনাও সেই রথচত্রে পড়েছেনতার সরকারের বড় ভুল আমলাতন্ত্রের ফাঁদে পা রাখাঅতীতে সরকারের বয়স বাড়লে সরকার এই ভুল করতএবার সরকার প্রথম দিন থেকেই আমলাতান্ত্রিক চোরাবালিতে পা দিয়েছেশেখ হাসিনাকে যারা পরামর্শ দেন, যারা চালান, যারা ঘিরে রেখেছেন তারা সবাই সাবেক ও বর্তমান আমলাএরশাদ সরকারের জি-১০-এর সদস্য আমলাদের কজন আছেন এই টিমে খালেদা জিয়া সরকারের গুড বুকে ছিলেন এ রকম কজন আমলা আছেন এই শক্তিমান নিউক্লিয়াসএমন কি ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুর রক্তাক্ত নিথর শরীরকে ৩২নং ধানমন্ডির সিঁড়িতে ফেলে রেখে খুনী মোশতাক সরকারের মন্ত্রিসভায় যারা যোগ দিয়েছিলেন সেই শপথ অনুষ্ঠান পরিচালনাকারী মুখ্য  আমলাও এই দলের পালের গোদা

     সুতরাং জনবিচ্ছিন্ন, ব্যক্তি ও গোষ্ঠীর স্বার্থরক্ষাকারী আমলা ও দল শেখ হাসিনাকে প্রথম থেকেই দল, রাজনীতি ও জনগণ থেকে দূরে রাখতে সচেষ্ট থেকেছেনদেশ পরিচালনায় সকল পরামর্শ তাদের কাছ থেকে নিতে বাধ্য করেছেনঅন্যদিকে সরকার দিন শুরু করতে না করতেই আমলাদের পদোন্নতি, সুবিধা, এসব বাড়াবার ব্যাপক ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হয়েছেফলে কথিত উপদেষ্টামন্ডলী কার্যত সরকারের কিচেন কেবিনেটহিসেবে কাজ করেছেএরাই সরকারকে অতীতের মতো বিপথে পরিচালিত করছেযার জন্য তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে তৈরি করা গোপন ও জনস্বার্থ বিরোধী দলিল, প্রোডাকশন শেয়ারিং কন্ট্রাক্ট ২০০৮ (পিএসসি মডেল ২০০৮) এর মাধ্যমেই সাগরের তেল গ্যাস ক্ষেত্রে মার্কিন ও আইরিশ কোম্পানির হাতে তুলে দিয়েছেন হাসিনাজনগণের স্বার্থের সঙ্গে সংঘাতময় অত্যন্ত বিপদজনক এই কাজটি জ্বালানি উপদেষ্টার পৌরহিত্যে শেখ হাসিনা এত দ্রুত করলেন, যার ফলে সরকার সম্পর্কে জনগণে একটা অনিশ্চয়তা ভর করছে

৭.

যুদ্ধাপরাধের বিচারের বিষয়েও একটা দ্বিধার  চাদর পরিয়ে দেয়া হয়েছে সরকারকেসরকারের রাজনৈতিক অংশের আকাংক্ষা সত্ত্বেও প্রশাসনিক অংশ এই ক্ষেত্রে ব্যর্থতার পরিচয় দিচ্ছেকূটনৈতিক ব্যর্থতার সঙ্গে নিরাপত্তা আশঙ্কাকে বাজারজাত করা হচ্ছে সরকারের মধ্যেইনিরাপত্তার অজুহাত তুলে শেখ হাসিনাকে যত বেশি বিচ্ছিন্ন করা যায় সেই চেষ্টা চলছেজনগণ ও দল থেকে, মিডিয়ার সঙ্গে যত দূরত্ব তৈরি করা যায় সেই সকল আমলাতান্ত্রিক ষড়যন্ত্রমূলক ফাঁদ তৈরি হয়েছে প্রথম থেকেইগোয়েন্দা প্রাধান্য পাওয়া সামরিক ও বেসামরিক এই আমলা জালে প্রথম থেকেই ধরা দিয়েছেন হাসিনাখুব পুরাতন সেই ফাঁদে নতুন সরকার পা রেখেছে সোৎসাহেফলে যা হওয়ার তাই হচ্ছেজনমুখী কোনো পদক্ষেপ বাস্তবায়ন করতে পারছে না সরকারবিপদ বাড়ছেবিপত্তিও বাড়ছেঅযথা জটিলতা সৃষ্টি হচ্ছে

ঢাকা।

 

মন্তব্য:
এ সপ্তাহের জরীপ

প্রেসিডেন্ট ওবামা ঠিকমত দেশ চালা্চ্ছেন।

 
Code of Conduct | Advertisement Policy | Press Release | Hard Copy Archive
© Copyright 2001 Porshi. All rights reserved.