Home | About Us | Porshi Team | Porshi Patrons | Event Announcement | Contact Us
হোমপেজ পুরনো সংখ্যা: সূচীপত্র  মূল রচনাবলীঃ  ||  ৯ম বর্ষ ৬ষ্ঠ সংখ্যা আশ্বিন ১৪১৬ •  9th  year  6th  issue  Sept-Oct  2009 পুরনো সংখ্যা
চলচ্চিত্রকার তানভীর মোকাম্মেল-এর সাথে কথোপকথন Download PDF version
 

বাউল গান ও সুফিবাদ

 

 

চলচ্চিত্রকার তানভীর মোকাম্মেল-এর সাথে কথোপকথন

 

বাংলাদেশের আধুনিক ও স্বনামধন্য চলচ্চিত্র নির্মাতা তানভীর মোকাম্মেল-এর সাথে পড়শীর এই সাক্ষাৎকার নিয়েছেন পড়শী নির্বাহী সম্পাদক মাহমুদুল হাসান।

 

তানভীর মোকাম্মেল

 

পড়শী : চলচ্চিত্রের বিষয় হিসেবে লালন কেমন করে এলো? চলচ্চিত্র বা ডকুমেন্টারীর জন্যে আপনি সাধারণতঃ সামাজিক বা রাজনৈতিক বিষয় বেছে নেনলালন কেমন করে গুরুত্ব পেল?

তানভীর মোকাম্মেল : লালন ফকির বা বাউলদের ব্যাপারে আমার আগ্রহের প্রথম কারণ ছিল বাউলদের দর্শনের অসাম্প্রদায়িকতালালন ফকির তথা বাংলার বাউল-ফকিরেরা গভীরভাবে অসাম্প্রদায়িকএই উপমহাদেশের রাজনীতি বা সামাজিক ইতিহাস যারা জানেন তারা জানেন যে এই দূর্ভাগা দেশে সমাজপ্রগতির পথে যাত্রায় অসাম্প্রদায়িকতা কত গুরুত্বপূর্ণ এক বিষয়লালন ফকিরের মাঝে আমি সে অসাম্প্রদায়িকতার লোকজ রূপটা খুঁজে পেয়েছি

ছবি : লালন

 
পরে লালনকে নিয়ে আমার গবেষণা যতো গভীরতর হয়েছে, বাউল-ফকিরদের সঙ্গে আরো ঘনিষ্ঠভাবে মিশেছি, তখন ক্রমশঃ বুঝতে পেরেছি মানবদেহকেন্দ্রিক ওঁদের যে বস্তুবাদীধ্যান-ধারণা, তা সত্যিকার অর্থেই বস্তুবাদী এক চেতনাআমি মার্ক্সবাদী হিসেবে জীবন শুরু করেছিলামসবরকম ভাববাদের উর্ধ্বে বস্তুবাদই ছিল আমার অন্বিষ্টবাউল-ফকিরদের দেহকেন্দ্রিক বস্তুবাদী নানা ক্রিয়াকান্ড দেখে ক্রমশঃ বুঝতে পারি ওরা কত একনিষ্ঠভাবে বস্তুবাদীওদের কাছে বস্তুঅর্থাৎ এই মানবদেহ ও দেহের বিভিন্ন অনুষঙ্গটাই মূলঅন্য আর সবই অনেক কম গুরুত্বপূর্ণমার্ক্সবাদী শাস্ত্রে রয়েছে দরিদ্র মানুষের কাছে তার দেহটাই মূল যার শ্রম বেচে সে টিঁকে থাকেআসলে সব বস্তুবাদের মূল কেন্দ্রটাই হচ্ছে-- এই মানবদেহ, যে মানবদেহের মাঝে বাউল-ফকিরেরা তাদের মনের মানুষবা সহজ মানুষ’-কে খুঁজে বেড়ায়তারা মানবদেহের সবচে বড় সাধকএ এমন এক মানবতাবাদ যা সম্পূর্ণভাবে ইউরোপীয় রেনেসাঁর প্রভাবমুক্তযে মানবতাবাদের উৎস একেবারেই বাংলার নিজস্ব লোকজ এক ঐতিহ্যলালন তথা বাউল-ফকিরদের এই বস্তুবাদী দৃষ্টিভঙ্গিটি আমাকে খুবই আকর্ষণ করে, কারণ আমাদের দেশে গরীব মানুষদের শোষণের ক্ষেত্রে ধর্মগুরুরা যে দর্শন চালাতে চায় তাতে মূল কথাটাই হচ্ছে এই জীবন কিছু  না, এই মানবদেহের সুখ কিছু না, সব কিছু আখেরাতে মিলবে ইত্যাদিলালন ফকির যিনি বলেন এমন মানবজীবন আর কী হবে/ মন যা কর ত্বরায় কর এই ভবেতাঁর এই ইহজাগতিক দর্শন সব রকমের ধর্মীয় আফিমের সম্পূর্ণ বিপরীতধর্মীতিনি এই মানবদেহ ও মানবজীবনের জয়গান গেয়েছেনতাই আমি লালনের প্রতি আকর্ষণ বোধ করেছি

তাছাড়া একজন শিল্পী হিসেবে লালন ফকিরের গান রচনার দক্ষতাটাও আমাকে গভীরভাবে মুগ্ধ করেছেকী অবলীলায় কী অব্যর্থ সব শব্দ প্রয়োগ, যেমন ধরেন নিঃশব্দ শব্দ খাবেবা আঁখির কোণে পাখীর বাসাএ ধরণের বৈদগ্ধ্য তো আমরা অনেক সুশিক্ষিত কবিদের মাঝেও পাই নাআবার কত সহজ-সরল গ্রামীণ সব চিত্রকল্পের মাধ্যমেই লালন তাঁর দর্শনের গভীর দিকগুলি ফুটিয়ে তুলতে জানতেনএক অসাধারণ প্রতিভা!

পড়শী : এ চলচ্চিত্রের জন্যে লালনের জীবন ও কাজের উপর গবেষণা করেছেন কীভাবে? কার কাছ থেকে সাহায্য পেয়েছেন?

তানভীর মোকাম্মেল : লালন ফকিরকে নিয়ে আমার প্রথম প্রামাণ্যচিত্রটি তৈরী করা হয়েছিল ১৯৯৬ সালেপ্রায় দেড় দশক আগেতার দুএক বছর আগে থেকেই লালন ফকির বিষয়ে আমার গবেষণার কাজ শুরু হয়

আমি খুলনা শহরে বড় হয়েছিকুষ্টিয়া থেকে খুলনা বেশী দূরে নয়ফলে অল্প বয়স থেকেই লালন ফকিরের গান শোনা হোত এবং আমার ভাল লাগতকার্যকর গবেষণার কাজটা শুরু হয় অচিন পাখীছবিটা শুরু করার কিছু আগে থেকেলালন ফকিরের উপর এ যাবৎ প্রকাশিত সকল বই, প্রবন্ধ, নিবন্ধ, গবেষণাপত্র, অভিসন্দর্ভ, সাক্ষাৎকার আমাকে পড়তে হয়েছেলালন ফকির নিয়ে অনেক বই-পুস্তকই লেখা হয়েছেতবে সে সব লেখালেখির অধিকাংশই স্বল্পমেধার গবেষকদের কাজ এবং অনেকক্ষেত্রে সাম্প্রদায়িকতা দোষে দুষ্টবিভিন্ন সময়ে যেসব লেখক ও গবেষকের বই পড়ে সত্যিকারের উপকার পেয়েছি তাঁরা হচ্ছেন সুধীর চক্রবর্তী, শক্তিনাথ ঝা, আবুল আহসান চৌধুরী, ক্যারল সলোমন ও জ্যাঁ ওপেনশ

এছাড়া বাউলদের সাথে প্রত্যক্ষভাবে মেলামেশা করেও অনেক কিছু জানতে-বুঝতে পেরেছিযাঁর কাছ থেকে সবচে বেশী সহায়তা পেয়েছি তিনি লালনের প্রশিষ্যের প্রশিষ্য মহিন শাহআমি যখন মহিন শাহর দেখা পাই তখন তিনি খুব বৃদ্ধমহিন শাহর মত এত মেধাবী মানুষ আমি খুব একটা দেখিনিমহিন শাহ আমাকে বেশ স্নেহ করতেনউনি কুষ্টিয়া-চুয়াডাঙ্গা-মেহেরপুর অঞ্চলে ওঁর ভক্ত-শিষ্যদের বাড়ীতে নিয়ে যেতেন, ওঁদের বিভিন্ন সাধুসঙ্গে অংশ নিতে দিতেনমহিন শাহর সঙ্গে লালন ফকিরের জীবন ও বাউল-ফকিরদের তত্ত্ব নিয়ে আমার অনেক কথা হোতবাসে, ট্রেনে, নৌকায়, গরুর গাড়ীতে ওঁর সঙ্গে প্রচুর ঘুরেছি আমিপদ্মার চরে চরে ওঁর সঙ্গে ঘুরে বেড়িয়েছিঢাকায় আমার বাসাতেও উনি এসে থেকেছেনলালন ফকিরের গান ও লালনের জীবনদর্শন বুঝতে মহিন শাহ আমাকে গভীরভাবে সাহায্য করেছেন

এছাড়া ছিলেন প্রবীন লালন তত্ত্বজ্ঞ বাদের ফকিরবাদের ফকির ছেঁউড়িয়ায় লালনের আশ্রমের পাশেই থাকতেনওঁর ওখানে নিয়মিত সাধুসঙ্গ হোত এবং আমি যেতামউনিও আমাকে বেশ স্নেহ করতেনওঁর কাছ থেকেও আমি লালন ফকির ও তাঁর দর্শন সম্পর্কে অনেক কিছু জেনেছিএছাড়া আছেন ফকির আনোয়ার হোসেন মন্টু শাহছেঁউড়িয়াবাসী মন্টু শাহই প্রথম লালন ফকিরের গান সংকলিত করার উদ্যোগ নেন এবং লালনের গান নিয়ে তিনটে সংকলন বের করেনলালনের জীবনের নানা দিক নিয়ে মন্টু শাহ আমাকে অনেক কিছু জানিয়েছেনএছাড়া বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গের অন্যান্য বাউল-ফকিরদের কাছ থেকেও লালনের গানের অনেক নিগূঢ় অর্থ আমি জেনেছি

পড়শী : লালনের উপর উল্লেখযোগ্য কয়েকটি গবেষণাকর্ম সম্পর্কে আমাদের পাঠকদের বলুন

তানভীর মোকাম্মেল : লালন ফকির সম্পর্কে অনেকেই বইপত্র লিখেছেনকিন্তু যেটা আগেই বলেছি যে এসব বইপত্রের অধিকাংশই ভক্তিমূলক লেখা এবং মেধাহীনতা ও সাম্প্রদায়িকতা দোষে দুষ্টউল্লেখযোগ্য ভালো কাজগুলোর মধ্যে আছে প্রথম দিককার পাইওনিয়র কাজ উপেন্দ্রনাথ বন্দোপাধ্যায়ের বাংলার বাউল ও বাউল গানএটি বাংলার বাউলদের উপরে একটি আকরগ্রন্থ বলা যেতে পারে

আর সুনির্দিষ্টভাবে লালন ফকির ও তাঁর গান নিয়ে যেসব ভালো বইয়ের কথা বলতে পারি সেগুলো হচ্ছে সুধীর চক্রবর্তীর ব্রাত্য লোকায়ত লালন”, “গভীর নির্জন পথে”, “বাউল-ফকির কথা”, “বাংলা দেহতত্ত্বের গান”, আবুল আহসান চৌধুরীর লালন শাহ”, শক্তিনাথ ঝার বস্তুবাদী বাউল”, “ফকির লালন সাঁই : দেশ কাল এবং শিল্পএবং দুই বিদেশী জ্যাঁ ওপেনশর বই ÒSeeking Bauls of BengalÓ ও ক্যারল সলোমনের লেখাগুলিআশ্চর্য্যজনক মনে হলেও অনেকক্ষেত্রে বিদেশীরাই যেন লালন ফকিরের জীবন ও সঙ্গীত সম্পর্কে গভীরতর কথাগুলি বলতে পেরেছেনওঁদের গবেষণার পদ্ধতি বৈজ্ঞানিক এবং ওঁদের মেধা, মনন ও আন্তরিকতা প্রশ্নাতীতএছাড়া লন্ডনবাসী বাউল-বিশেষজ্ঞ রঙ্গন মোমেনের সঙ্গে আলাপ করে এবং ওঁর সংগ্রহের বাউল-ফকিরদের গানের সংগ্রহশালাও থেকেও আমি অনেক কিছু জেনেছি

পড়শী : এ চলচ্চিত্র থেকে দর্শকরা কী পাবে বলে আপনার প্রত্যাশা?

তানভীর মোকাম্মেল : লালন ফকির নামটি ইদানিং বাঙালি মধ্যবিত্তের মধ্যে বেশ জনপ্রিয় হচ্ছেতবে তাঁর গান বলতে মধ্যবিত্ত শ্রোতারা এখনও টেপ বা সিডিতে ফরিদা পারভীনের গাওয়া লালন ফকিরের যে কয়টা মন-উদাস করা গান রয়েছে সেগুলোই বুঝে থাকেনলালনের গানের বিশাল ব্যাপ্তি ও নানামূখী গভীরতা সম্পর্কে সাধারণ বাঙালিদের স্বচ্ছ ধারণার অভাব রয়েছেলালনের বিশাল সঙ্গীত জগতের সঙ্গে দর্শকদের পরিচয় করিয়ে দেবার জন্যে লালনছবিটিতে লালনের নানারকম গান, যেমন প্রবর্ত ও দৈন্যের গান, গোষ্ঠের গান, কৃষ্ণবন্দনা, নবীতত্ত্ব, সৃষ্টিতত্ত্ব এসব গানের নানাবিধ ব্যবহার আমরা করেছিছবিটাকে আমরা একটা মিউজিক্যাল ফিল্ম হিসেবেই তৈরী করেছি যাতে লালনের সর্বোচ্চ সংখ্যক গানের ব্যবহার করা যায়লালনের গানের যথাযথ ব্যবহারে ছবিটির সঙ্গীত পরিচালক সৈয়দ সাবাব আলী আরজু খুব ভাল কাজ করেছেন বলে আমি মনে করিতাছাড়া লালনের অনেক গানের বাণী চরিত্রদের মুখে সংলাপ হিসেবেও ব্যবহৃত হয়েছেউদ্দেশ্য হচ্ছে লালনের কেবল গান নয়, তাঁর গোটা জীবনদর্শনটাই তুলে ধরাতাছাড়া জীবনীমূলক একটা চলচ্চিত্র তৈরী করতে গেলে ওই মানুষটি জীবদ্দশায় আর যাঁদের সাথে সম্পর্কিত ছিলেন, তাঁদের কথাও বলতে হয়লালনের ক্ষেত্রে ওঁর স্ত্রী বা সাধনসঙ্গিনী বিশাখারানী, কন্যা প্যারিন্নেসা, প্রিয় শিষ্য ভোলাই শাহ্, শীতল শাহ, দুদ্দু শাহ, মাণিক শাহ যিনি লালনের গানে সুর দিতেন, মনিরুদ্দী শাহ যিনি লালনের গানের বাণী লিখে রাখতেন, বন্ধু কাঙ্গাল হরিনাথ, মীর মোশারফ হোসেন, ঠাকুর পরিবারের জ্যোতিরীন্দ্রনাথ ঠাকুর যিনি লালনের স্কেচ এঁকেছিলেন, এঁদের কথাও আনতে হয়েছেকারণ চারপাশের মানুষগুলোকে না জানলে একটা চরিত্রকে ঠিকমতো বোঝা যায় নাবাঙালি দর্শকেরা এ ছবির মাধ্যমে লালনের সময়কাল, সেই সময়কার সামাজিক আবহ ও সে সময়ের সামাজিক-রাজনৈতিক বিতর্কগুলো বুঝতে পারবেনআরেকটি বিষয় হচ্ছে, চলচ্চিত্র একটা আন্তর্জাতিক মাধ্যমলালনচলচ্চিত্রটির মাধ্যমে অন্য দেশের, অন্য সংস্কৃতির মানুষেরাও লালন ফকিরের মাহাত্ম্য ও তাঁর সঙ্গীতের জগৎ সম্পর্কে জানতে পারবেন বলে আশা করি

পড়শী : আপনি কি এ চলচ্চিত্র নির্মাণ করে তৃপ্ত? আবার যদি এটি তৈরী করার সুযোগ হোত তাহলে ভিন্ন কিছু কী করতেন? এ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে লালনের উপর সুবিচার করতে পেরেছেন কি?

 

তানভীর মোকাম্মেল : তৃপ্তি বেশ আপেক্ষিক শব্দতবে সন্তুষ্ট হতে না পারা পর্যন্ত আমরা তো কোনো ছবির কাজ শেষ করি নালালনছবিটি আবার তৈরী করলে হয়তো এভাবেই আবার তৈরী করতামকারণ লালনের সঙ্গীত ও জীবনদর্শনের প্রতি এই আঙ্গিকেই সবচে বেশী সুবিচার করতে পারব এই বিশ্বাস থেকেই ছবিটা আমরা এভাবে বানিয়েছি

তবে যে কোনো ছবির সফলতার এক বড় মাপকাঠি হচ্ছে চলচ্চিত্রের শিক্ষায় শিক্ষিত মননশীল দর্শকেরাতাঁরা ছবিটাকে কীভাবে দেখছেন তার উপরই ছবিটার গ্রহণযোগ্যতা নির্ভর করে

পড়শী : বাঙালি মানসে লালনের সুদূরপ্রসারী প্রভাব রয়েছে বলে কি আপনি মনে করেন?

তানভীর মোকাম্মেল : হ্যাঁএবং সে প্রভাব উত্তরোত্তর বাড়বে বলে আমার বিশ্বাসবাঙালি মুসলমান যতো অসাম্প্রদায়িক হতে থাকবে, লালন ফকিরকে তারা তত ভাল বুঝতে পারবে এবং তাঁর প্রতি আকর্ষিত হবেআরেকটা বিষয় হচ্ছে দর্শনের চিন্তার ক্ষেত্রে বাঙালির দারিদ্র্য আছেমানে বাঙালি উচ্চ ও মধ্যবিত্তের শিল্প-সংস্কৃতির মাঝে দর্শনের চর্চা প্রায় নেই বললেই চলেবাংলার দরিদ্র বাউল-ফকিরেরাই বরং, এবং লালন ফকির তাঁদের মধ্যে সেরা, সৃষ্টির রহস্য, ঈশ্বরের  অস্তিত্ব-অনস্তিত্ব, মূল্যবোধের আপেক্ষিকতা, মানুষের সাথে ঈশ্বরের সম্পর্ক, এসব গভীর দার্শনিক বিষয় নিয়ে নানা প্রশ্ন তুলেছেন এবং তাঁদের নিজেদের মতো করে তা চর্চা করেছেনতাদের মানবদেহকেন্দ্রিক বস্তুবাদী দর্শনচর্চাটা কেউ না মানতে পারেন, কিন্তু তাদের দর্শনটা যে বেশ মৌলিক এবং গভীরভাবে মানবতাবাদী একথা কেউই অস্বীকার করতে পারবেন নালালন ফকিরের প্রতি আমার আকর্ষণ সৃষ্টির সেটাও একটা কারণযেমন একজন গবেষক বলেছেন যে আমাদের এই দার্শনিক দারিদ্র্যের দেশে লালন ফকির হচ্ছেন বাঙালির দার্শনিক হৃদয়বাঙালি যত দর্শনমনস্ক হবে লালনের প্রতি এদেশের মানুষের আগ্রহ ততই বাড়তে থাকবে

পড়শী : লালনচলচ্চিত্রটিতে সংলাপের চাইতে সঙ্গীতের প্রাধান্যএটিকে কী আপনি ইংরেজীতে যাকে বলে মিউজিক্যাল, সেই ধাঁচে নির্মাণ করেছেন?

তানভীর মোকাম্মেল : হ্যাঁলালনের জীবনচিত্র কিছুটা ধোঁয়াশালালন ফকিরকে ঘিরে নানা মীথ সৃষ্টি করা হয়েছে   বাস্তবে যা একমাত্র রয়েছে তা হচ্ছে লালনের কয়েকশ গানওঁর সৃষ্ট গানের মধ্য থেকেই আমরা লালন ফকিরের জীবনদর্শনকে বুঝতে চেয়েছিওঁর আত্মিক সত্ত্বাকে খুঁজতে চেয়েছিসে কারণেই লালনের গানের সর্বোচ্চ সংখ্যক ব্যবহার আমরা করতে চেয়েছিফলে গতানুগতিকভাবে লালনের জীবনের গল্প না বলে ছবিটাকে আমরা একটা মিউজিক্যাল ফিল্ম হিসেবে বানাতে চেয়েছিলাম যেখানে চরিত্ররা গান গায়কারণ আমাদের মনে হয়েছে যে তার ফলে আমরা লালনের গানগুলির প্রতি বেশী সুবিচার করতে পারব এবং ওঁর সর্বোচ্চ সংখ্যক গান ব্যবহার করতে পারবআমি আগেই বলেছি, লালন ফকির সম্পর্কে অনেক গল্পগাঁথা প্রচলিত আছে যা অধিকাংশই ভিত্তিহীনশুধুমাত্র যা রয়েছে, তা হচ্ছে ওঁর গানআমাদের মনে রাখতে হবে লালন ফকির মানুষটা সবার উপরে একজন স্রষ্টা, শিল্পী, একজন গীতিকারতাই ওঁর গানগুলির মধ্য দিয়েই আমরা ব্যক্তি লালন ফকির, তাঁর জীবনদর্শন ও আত্মিক অনুভূতিসমূহকে ধরতে চেয়েছিলাম

পড়শী : এই চলচ্চিত্রে বেশ কয়েকজন বাউলকে দিয়ে আপনি অভিনয় করিয়েছেনতাঁদের সঙ্গে কাজ করার অভিজ্ঞতা কেমন?

তানভীর মোকাম্মেল : চমৎকার অভিজ্ঞতাএটা আমাদের পরিকল্পনাই ছিল যে লালনের শিষ্য ও সহকর্মী বাউল-ফকিরদের চরিত্রগুলো আমরা সত্যিকারের বাউল-ফকিরদের দিয়ে অভিনয়ে করাবকারণ মধ্যবিত্ত অভিনেতা-অভিনেত্রীদের দিয়ে ওই রূপটা ফোটানো যাবে নাফলে ভোলাই শাহ, শীতল শাহ, দুদ্দু শাহ, মানিক শাহ, মনিরুদ্দী শাহ, ভাঙ্গুরা ফকিরাণী প্রমুখ চরিত্রগুলো মূলতঃ প্রকৃত বাউল-ফকিরেরাই করেছেন

ছবি : অচিন পাখী

 
এঁরা অনেকেই বেশ সহজ-সরল গ্রামীণ মানুষ এবং মানুষ হিসেবে খুবই কৌতূহলোদ্দীপকএঁদের সরলতার একটা বর্ণনা দিইছবির শেষ দৃশ্যে, যেখানে লালন মারা যাচ্ছেন, যেহেতু বেশ একটা ভাবগম্ভীর পরিবেশে শুটিং হচ্ছে, আমরাও সব চুপচাপ, রাইসুল ইসলাম আসাদের চমৎকার অভিনয়, কিছু বাউল-ফকিরেরা ভাবলেন ওঁদের পরমপ্রিয় সাঁইজীবোধহয় সত্যি-সত্যিই মারা যাচ্ছেন! ওঁদের মধ্যে কেউ কেউ সত্যি-সত্যিই কান্নাকাটি শুরু করে দিয়েছিল! আমাদের ওদেরকে বোঝাতে হয়েছে এটা শুটিং-য়ের অংশ, বাস্তব কিছু নয়

পড়শী : এ চলচ্চিত্রে বটগাছের সঙ্গে নদীতীরের কিছু অপূর্ব দৃশ্য আপনি ব্যবহার করেছেনএ দৃশ্যগুলো বাংলাদেশের কোথায় শুটিং করেছেন? লোকেশন কেমন করে খুঁজে পেলেন?

তানভীর মোকাম্মেল : সব ছবির জন্যেই সঠিক লোকেশন খোঁজার একটা দায় আমাদের থাকেলালনছবির ক্ষেত্রেও বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ঘুরে ঘুরে আমাদেরকে লোকেশন নির্বাচন করতে হয়েছেবড় নদী ও নদীপারের শট্গুলো নেয়া হয়েছে কুষ্টিয়ার শিয়ালদহ অঞ্চলে পদ্মা নদীর পারে

আর লালনের আশ্রমটি, আমার বিবেচনায় যা শিল্প-নির্দেশক উত্তম গুহ চমৎকারভাবে চারপাশের প্রকৃতির মাঝে মিলিয়ে দিতে পেরেছিলেন, সেটা গড়া হয়েছিল যশোর-খুলনা জেলার সীমান্তে ভৈরব নদীর পারে ভুগিলহাট গ্রামেএ জায়গাটি আমার নিজের গ্রাম খুলনার ফুলতলার পায়গ্রামকশবার ঠিক উল্টোদিকে-- ভৈরবের অপর পারেলালনের আশ্রমের পাশে ভৈরব নদীর কিনারে একটা বড় বটগাছ ছিলআরেকটি বড় বটগাছের যে শট্ রয়েছে তা কুষ্টিয়ার হরিহরপুরের

পড়শী :  ছবিটা সম্পর্কে বাংলাদেশে ও দেশের বাইরে কী রকম আলোচনা-সমালোচনা পেয়েছেন জানাবেন কী?

তানভীর মোকাম্মেল : বাংলাদেশে চলচ্চিত্রভাষায় শিক্ষিত দর্শক তেমন নেই বলে আমাদের কোনো ছবিই এদেশে তেমন জনপ্রিয় হয় নাচলচ্চিত্রের নামে উচ্চকিত নাটুকেপনা ও অতিনাটকীয় গল্পেই তাঁরা বেশী অভ্যস্তদর্শকদের দোষ দেওয়া যায় না, কারণ অন্য ধরণের চলচ্চিত্র তো এদেশে খুব বেশী তৈরী হয় না, ফলে সাধারণ দর্শকদের চলচ্চিত্রবোধে ঘাটতি রয়েছেআর লালনছবির ক্ষেত্রে বিশেষ যে সমস্যা তা হচ্ছে লালনছবিটিতে প্রচলিত আঙ্গিকের কোনো গল্প নেইআমরা মূলত: ওঁর গানগুলির মধ্য দিয়েই লালনের জীবনদর্শন, আত্মিক সংকট ও জীবনের বিভিন্ন সময়ে ওঁর মানসিক বিবর্তন তুলে ধরার চেষ্টা করেছিঅবশ্য ছবিটা সূ²ভাবে কেউ দেখলে লালনের জীবনের গল্পটা তিনি ঠিকই জানতে পারবেনকিন্তু আমরা প্রচলিত আঙ্গিকে গল্প বলা থেকে ইচ্ছাকৃতভাবেই বিরত থেকেছিএ কারণেই বাংলাদেশের কোনো কোনো দর্শকের কাছে ছবিটা তেমন জনপ্রিয় হয়নিতাছাড়া, লালন ফকিরের মন-উদাস করা কিছু গান শহুরে মধ্যবিত্ত দর্শকদের রোমান্টিক মনের কাছে প্রিয় হলেও বাউল-ফকিরদের বিচিত্র সাধনপদ্ধতি ও বাস্তব জীবনচর্চা সম্পর্কে তারা সামান্যই জানেনআমাদের ছবিতে সেসব দেখে ও শুনে তারা কিছুটা ধাক্কাই খেয়েছেন! আর যারা সাম্প্রদায়িক ধারায় চিন্তা করেন, লালনছবিটা তাদের ভালো লাগবার কোনো কারণ নেই

তবে লক্ষ্য করছি ছবিটা বিদেশে বেশ জনপ্রিয় হচ্ছে এবং সে জনপ্রিয়তা দিন দিন বাড়ছেছবিটা ফ্রান্সে, জাপানে ও ভারতে ভালো প্রশংসা পেয়েছেসম্প্রতি মরক্কোতেও ছবিটার কিছু প্রদর্শনী হয়েছেআমি উপস্থিত ছিলামমরক্কোয় সুফী মতবাদের গভীর প্রভাব রয়েছেফলে দেখলাম ওঁরা লালন ফকিরকে সহজেই বুঝতে পেরেছেন এবং ছবিটার খুবই প্রশংসা করেছেনআমার নিজের বিশ্বাস, ছবিটার গ্রহণযোগ্যতা ও জনপ্রিয়তা আগামী দিনে আরো বৃদ্ধি পেতে থাকবে

 

সাক্ষাৎকার গ্রহণ : মাহমুদুল হাসান

আগস্ট ২৮, ২০০৯

 

 

মন্তব্য:
এ সপ্তাহের জরীপ

প্রেসিডেন্ট ওবামা ঠিকমত দেশ চালা্চ্ছেন।

 
Code of Conduct | Advertisement Policy | Press Release | Hard Copy Archive
© Copyright 2001 Porshi. All rights reserved.